রবিবার, ১৯শে মে, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ৯:১৫
Home / মাহফিল / ৩২ বছর পর সিলেটে ইজতেমা
ইজতেমা মাঠে চলছে জোর প্রস্তুতি

৩২ বছর পর সিলেটে ইজতেমা

দীর্ঘ ৩২ বছর পর ফের সিলেটে আয়োজন করা হয়েছে তাবলিগ জামাতের ইজতেমা। বিশ্ব ইজতেমার অংশ হিসেবে দক্ষিণ সুরমার মোল্লারগাঁও ইউনিয়নের সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়কসংলগ্ন বিশাল মাঠে তিন দিনব্যাপী এ ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। ইজতেমা শুরু হবে ২৯ ডিসেম্বর। শেষ হবে ৩১ ডিসেম্বর।

আয়োজক সূত্রে জানা যায়, ধর্মপ্রাণ মানুষের যাতে কষ্ট না হয়, সেজন্য বিশাল মাঠে সাজানো হচ্ছে প্যান্ডেল। মাঠে ১১টি খিত্তা থাকবে। এ ছাড়া মাঠের দক্ষিণ পাশে ৫ থেকে ৬ হাজার মুসল্লি যাতে একসঙ্গে অজু করতে পারেন, সেজন্য থাকবে বিশাল অজুখানা। এই অজুখানা ছাড়াও আরও ৩৫ থেকে ৪০টি ছোট অজুখানার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মাঠের একপাশে অন্তত ২ হাজার শৌচাগার থাকবে; ৫টি গভীরসহ ১৫টি নলকূপ বসানো হবে।

সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. জয়নাল আবেদীন জানান, ইজতেমার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা দেওয়া হচ্ছে। নলকূপ বসানো, বিদ্যুতের ব্যবস্থা, রাস্তা করা এবং রাস্তার উন্নয়নসহ অধিকাংশ কাজে জেলা প্রশাসন সহযোগিতা করছে। তিনি আরও জানান, মুসল্লিরা যাতে সুন্দরভাবে ইজতেমায় অংশ নিতে পারেন, সেজন্য পুলিশ প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসন সার্বিক দিকে দৃষ্টি রাখছে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব জানান, ইতোমধ্যে দুটি গভীর নলকূপ দেওয়া হয়েছে। পানির ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে। লাইট দেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে সিটি করপোরেশনের সহযোগিতা থাকবে।

ইজতেমার মাঠের কাজ পরিদর্শনকালে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ জানান, প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের নিরাপত্তায় বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।

তাবলিগের সিনিয়র মুরব্বি সৈয়দ ইব্রাহিম জানান, ৩২ বছর পর সিলেটে ইজতেমা হচ্ছে। ৩২ বছর আগে পলিটেকনিক মাঠে জেলা পর্যায়ে একটি ইজতেমা হয়েছিল। সিলেট জেলার ইজতেমা সফল করতে সবাই এগিয়ে এসেছেন।

এদিকে ইজতেমার আশপাশে বসানো হচ্ছে বিপুলসংখ্যক দোকান। বসছে রেস্টুরেন্টও। স্থানীয়রা বলছেন, ওই এলাকায় এবার ইজতেমা হওয়ায় ব্যবসায়ীদেরও ব্যবসা ভালো হবে।

সূত্র জানায়, তাবলিগের শীর্ষ মুরব্বিদের নতুন সিদ্ধান্তে চলতি বছরের বিশ্ব ইজতেমায় দেশের যে ৩২টি জেলা বাদ পড়বে, ২০১৮ সালে অনুষ্ঠেয় বিশ্ব ইজতেমার দুই পর্বে সেই ৩২ জেলার তাবলিগ জামাত সদস্যরা অংশ নেবেন।

জেলাগুলো হচ্ছে কক্সবাজার, বান্দরবান, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, নোয়াখালী, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, গোপালগঞ্জ, লালমনিরহাট, কুডিগ্রাম, দিনাজপুর, রংপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, পাবনা, জয়পুরহাট, যশোর, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, বরিশাল ও বরগুনা। এসব জেলার মুসল্লিরা এবার টঙ্গীর তুরাগ তীরে ইজতেমায় অংশ নেবেন। বাকি ৩২টি জেলার মুসল্লিরা এবার নিজেদের জেলায় ইজতেমা করবেন।

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসার কারণেই দেশের মানুষ এত ধর্মপরায়ন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গতকাল ৩ মার্চ শুক্রবার বিকালে রাজধানীর ইসলামিক ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষক সমিতি এর ...