বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ বিকাল ৪:৫০
Home / আকাবির-আসলাফ / মুহাম্মাদ ইবন আব্দিল কারিম আল খাত্তাবী রহ.

মুহাম্মাদ ইবন আব্দিল কারিম আল খাত্তাবী রহ.

khattabi...মুহাম্মাদ সাজিদ করিম : জুলাই, ১৯২১।

জেনারেল ফারনান্দেজ সিলভাসটারের নেতৃত্বে বিশ হাজারেরও বেশী স্প্যানিশ সৈন্য মার্চ করছে রিফে মাগরিবের দিকে। লক্ষ্য সাম্রাজ্যবাদবিরোধী জিহাদ পরিচালনাকারী, রিফের ইসলামী ইমারাতের আমীর, মুহাম্মাদ ইবন আব্দিল কারিম আল খাত্তাবীর মুজাহিদীন বাহিনীকে চিরতরে দুনিয়ার বুক থেকে মিটিয়ে দেয়া। তাদের সাথে তৎকালীন সময়ের সর্বাধুনিক রাইফেল, ভারী আর্টিলারি গান সেই সাথে কয়েকটা যুদ্ধবিমান।

আমীর খাত্তাবী সিদ্ধান্ত নিলেন শত্রু বাহিনী রিফে মাগরিবে ( বাংলা করলে বলা যায় মরক্কোর গ্রাম্য দিক) ঢুকে মুসলিমদের উপর গণহত্যা চালানোর আগেই তাদের দূরে থামাতে হবে। কিন্তু তার সৈন্যসংখ্যা মাত্র কয়েক হাজার। অস্ত্র বলতে প্রাচীন আমলের কিছু বন্দুক, তাও আবার সবাইকে অস্ত্রে সজ্জিত করার মত নয়। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন আল্লাহর উপর ভরসা করে যাই আছে তা নিয়েই নেমে পড়তে হবে। ঠিক হলো ‘আনুয়াল’ শহরের নিকট স্প্যানিশ বাহিনীকে অ্যামবুশ করা হবে। নিজেদের এলাকা, তাই তার সৈন্যরা সে জায়গাকে খুব ভালো ভাবেই চেনে।

২২ জুলাই, ১৯২১।

আনুয়ালে পরিকল্পনামত অ্যামবুশ করা হল তৎকালীন বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম শক্তি, স্প্যানিশদের। অধিক সৈন্যসংখ্যা, আধুনিক অস্ত্র, এয়ার সাপোর্ট থাকার পরও স্প্যানিশরা স্বল্প সংখ্যক বারবার মুসলিমদের হাতে কচুকাটা হতে লাগলো। যুদ্ধ শেষে দেখা গেল জেনারেল ফারনান্দেজসহ নিহত হয়েছে প্রায় ১৯ হাজার স্প্যানিশ সৈন্য। মোট সেনাবাহিনীর মধ্য থেকে মাত্র ১২০০ সৈন্য জীবন নিয়ে পালাতে সক্ষম হয়। মুসলিমদের গানিমাহর মধ্যে ছিল ২০,০০০ রাইফেল, লক্ষ লক্ষ বুলেট, দুইটা বিমান, ৪০০ মেশিন গান ও প্রায় দেড়শো আর্টিলারি।

“তাদের সঙ্গে যুদ্ধ করো,আল্লাহ্ তাদের শাস্তি দেবেন তোমাদের হাতে,আর তাদের লাঞ্ছিত করবেন,আর তোমাদের সাহায্য করবেন তাদের বিরুদ্ধে,আর মুমিন সম্প্রদায়ের অন্তরসমূহ প্রশান্ত করবেন”। (৯:১৪)

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

আদালতের ওপর বিশ্বাস ভেঙে গেছে: সায়্যিদ মাহমুদ মাদানী

নাজমুল মনযূর: আদালতের ওপর বিশ্বাস ভেঙেছে ইংরেজ খেদাও আন্দোলনে অংশগ্রহণ করা সেই মুসলমানদের। এমন কথাই ...