বুধবার, ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ৩:১০
Home / আমল / ইবাদত-বন্দেগিতে মধ্যম পন্থা অবলম্বন করা উচিত

ইবাদত-বন্দেগিতে মধ্যম পন্থা অবলম্বন করা উচিত

silent-duaوعن عائشة رضي الله عنها : أنَّ النَّبيّ ﷺ دخل عَلَيْهَا وعِندها امرأةٌ، قَالَ: «مَنْ هذِهِ ؟»قَالَتْ: هذِهِ فُلاَنَةٌ تَذْكُرُ مِنْ صَلاتِهَا . قَالَ: «مَهْ، عَلَيْكُمْ بِمَا تُطِيقُونَ، فَواللهِ لاَ يَمَلُّ اللهُ حَتَّى تَمَلُّوا»وكَانَ أَحَبُّ الدِّينِ إِلَيْهِ مَا دَاوَمَ صَاحِبُهُ عَلَيهِ . مُتَّفَقٌ عَلَيهِ

অর্থ : আয়েশা রা. থেকে বর্ণিত আছে, একবার নবী স. তার কাছে গেলেন । তখন এক মহিলা তার কাছে (বসে) ছিলো। তিনি বললেন— এ কে?

আয়েশা রা. বললেন— অমুক মহিলা, যে প্রচুর নামাজ পড়ে।

তিনি বললেন— থামো, তোমরা সাধ্যমতো আমল করো। আল্লাহর কসম, আল্লাহ ক্লান্ত হন না, যতক্ষণ তোমরা ক্লান্ত হয়ে না পড়ো।

সেই আমল রাসূলের কাছে সবচে’ ছিলো, যা আমলকারী লাগাতার করে থাকে।

[সহিহ বুখারি, হাদিস ৪৩]

 

‘আল্লাহ ক্লান্ত হন না’— এ কথার অর্থ হলো, তিনি সওয়াব দিতে ক্লান্ত হন না। অর্থাৎ তিনি তোমাদেরকে সওয়াব ও তোমাদের আমলের প্রতিদান দেওয়া বন্ধ করেন না এবং তোমাদের সাথে ক্লান্তের মতো আচরণ করেন না; যে পর্যন্ত না তোমরা নিজেরাই ক্লান্ত হয়ে আমল ত্যাগ করে কসো। সুতরাং উচিত হলো, সেই আমল গ্রহণ করা, যা মানুষ একটানা করে যেতে সক্ষম। যাতে তার সওয়াব ও তার অনুগ্রহ আমাদের জন্য নিরবচ্ছিন্ন থাকে।

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

আধ্যাত্মিকতা

ডক্টর আব্দুস সালাম আজাদী:: আধ্যাত্মিকতা **************** রুহানিয়্যাত বা আধ্যাত্মিকতা ইসলামের এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এর মূল ...