মঙ্গলবার, ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১২:৪০
Home / কওমি অঙ্গন / দুই প্রিন্সিপালের স্মরণীয় মূহূর্ত

দুই প্রিন্সিপালের স্মরণীয় মূহূর্ত

100
ইলিয়াস মশহুদ :: সিলেটের দুই তাজ, ইসলামি আন্দোলনে এক সময়ের ঘনিষ্ট বন্ধু, আদর্শিক চেতানায় বর্তমানে দুই মেরুতে অবস্থানকারী বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর, বাংলার সিংহপুরুষ খ্যাত, জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া কাজির বাজার, সিলেট’র প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবীবুর রহমান সাহেব এবং খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর, জামেয়া নুরীয়া ইসলামিয়া ভার্থখলা মাদরাসার স্বনামধন্য প্রিন্সিপাল মাওলানা মজদুদ্দীন সাহেবদ্বয়ের সেখানেই সাক্ষাৎ।

গত বৃহম্পতিবার হঠাৎ করেই আঞ্জুমানের বার্ষিক মাহফিলে দু’জনের মাঝে দেখা হয়ে যায়। বয়ান শেষে স্টেইজ থেকে প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান সাহেব নামছেন, এমতাবস্থায় মাওলানা মজদুদ্দীন সাহেব স্টেইজে উঠবেন! মুখোমুখি দু’জন। দু’জনই মুসাফাহা-মু’আনাকা করলেন। একে অপরকে জড়িয়ে ধরে অনেক্ষণ কাঁদলেন। আল্লাহু আকবার।

হযরতদ্বয়ের আকষ্মিক এই ‘দেখা’ এবং ‘জড়িয়ে ধরা’ নিয়ে ভার্চ্যূয়াল জগতে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। অনেকেই তাদের ফেসবুক আইডিতে ‘অন্তরঙ্গ’ মুহূর্তের ছবি আপলোড করেছেন। মন্তব্য-পাল্টা মন্তব্যে বিষয়টি গত দু’দিন যেন টক অব দ্যা ফেসবুক হয়ে দাঁড়িয়েছিল।

তাদের এই সাক্ষাৎকে অনেকেই ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখলেও কিছু কিছু মানুষ আবার এটাকে ‘বাধ্য হয়ে উছলে ওঠা প্রেম বা লোক দেখানো মায়া কান্না’ বলে প্রচার করতেও ছাড়েন নি।

সাইফ রাহমান নামে জনপ্রিয় অনলাইন এ্যক্টিভিষ্ট তার ফেসবুকে ছবি শেয়ার করে লিখেছেন- “…একজনের প্রতি আরেকজনের মায়া-মহব্বত এখনো সেই আগের মত রয়েছে, যেরকম ছিলো খেলাফত মজলিস এক থাকতে! ময়দানে একই সাথে কাজ করতে। আজ তাঁরা একদলে নেই, ভিন্নদলে! কিন্তু ভালোবাসাটুকু সেই আগেরমত আছে এখনো। ”
তার এই পোস্টের জবাবে Ridowanul Huque Bd নামে একজন মন্তব্য করেছেন-“মাশাআল্লাহ! মনে হচ্ছে দুই খেলাফত মজলিস একিভূত হওয়ার পথে আরো একদাপ এগিয়ে গেল। ইতিপূর্বে অসুস্থ মুহতারাম প্রিন্সিপাল সাহেবকে দেখতে খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর, শায়খুল হাদীস মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী সাহেব, নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান পেশওয়ারি সাহেব ও মহাসচিব অধ্যাপক ড. আহমদ আবদুল কাদেরসহ কেন্দ্রীয় এবং স্থানীয় নেতৃবৃন্দ দেখতে গিয়েছিলেন। তাদের মাছে আল্লাহ যেন মুহাব্বাত সৃষ্টি করে দেন। আমীন।” Hafiz Moulana Iqbal Hussain নামে আরেকজন লিখেছেন- “দীর্ঘদিনের পর উভয়ের মোলাকাত আল্লাহ যেন কবুল করেন। প্রিন্সিপাল সাহেব দীর্ঘ সময় অসুস্থ থাকাকালীন সময়ে নদীর ওপারে থেকেও মাওলানা মজদুদ্দীন সাহেব গাড়ি কাজির বাজার ব্র্রীজ পার হয়ে জামেয়া প্রাঙ্গনে আসতে পারলনা , এটা অবশ্যই অনুতাপের বিষয়।
আল্লাহ যেন হযরতদ্বয়কে এক করে দেন। উভয় খেলাফত মজলিস এক হয়ে যায়। মাওলা যেন সে ব্যবস্থা-ই করে দেন। আমীন।

ছবি : বদরুল বিন আফরোজ

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...