বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১:৩৯
Home / নারী-পুরুষ / তিন বছরের শিশুও ধর্ষণের শিকার! মনুষ্যত্ব হারিয়ে গেছে?

তিন বছরের শিশুও ধর্ষণের শিকার! মনুষ্যত্ব হারিয়ে গেছে?

indexরেজাউল করীম আবরার ::
পুরো বাংলাদেশটাই দিগম্বর হয়ে গেছে। সর্বত্র পশুত্বের জয়জয়কার। মনুষ্যত্ব বলতে কিছুই নেই এখন বাংলাদেশে। আইয়্যামে জাহেলিয়্যাতেও তিন বছরের শিশু ধর্ষিত হয়নি। অথচ গত বৃহস্পতিবার রায়েরবাগে তিন বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে! বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ এগুচ্ছে। আগানোর প্রমাণ আমরা পেতে শুরু করেছি। মেয়ের হাতে মা বাবা খুন, মায়ের হাতে নাড়ী ছেড়া সন্তান খুন, বাবার হাতে মেয়ে ধর্ষিত, ছেলে জোর করে মায়ের সাথে খারাপ কাজে লিপ্ত হওয়া এবং সর্বশেষ রায়েরবাগের ঘটনা আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশের ছবি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল যে, আমরা কতটা আধুনিক!

মানুষকে পাপাচার থেকে দূরে রাখবে যে ইসলাম, তাকে ঝেটিয়ে বাংলাদেশ থেকে তাড়ানোর মহা পরিকল্পনা চলছে। কারণ ইসলামের মধ্যে মানবতা নেই! ইসলাম হল বর্বর আরবদের ধর্ম। ইসলামের মধ্যে সমকামীদের পাছার অধিকার দেওয়া হয়নি। এজন্য খুশি কবীররা মানুষের পাছায় মানবতা খুঁজে পেয়ে তার জন্য আন্দোলন করেন!
নারীর অধিকার আদায়ের আন্দোলনের নামে তারা নারীকে ফেলে দিয়েছে মানুষ খেকো হায়েনাদের সামনে! যারা খাবলে খাচ্ছে অবলা নারীদের! ইসলাম তাদের আমোদ-ফুর্তির পথে বাধা হয়ে দাড়ায়, এজন্য ইসলাম নিয়ে তাদের যত মাথাব্যথা। কারণ ইসলামের পবিত্র হুকুম হল, এধরণের পাপিষ্টদের বেঁচে থাকার অধিকার নেই। যদি তারা বিবাহিত হয়, তাহলে তাকে জনসমক্ষে প্রস্তারাঘাতে হত্যা করা হবে। বিবাহিত না হলে তাকে দুররা মারা হবে। মাত্র দুইজন ধর্ষককে যদি ইসলামী আইন অনুসারে বিচার করা হযেত, তাহলে অপরাধের মাত্রা নেমে আসত শুন্যের কোঠায়। ইসলামের স্বর্ণযুগের ইতিহাস দেখুন। কোন নারীর শ্লীলতাহানির ঘটনা নেই। খুন-খারাবী ছিলনা। নারীরা প্রয়োজনে নির্ভয়ে রাতে বন বাদাড় পেরুতে পারত। আইয়্যামে জাহেলিয়্যতকে দূর করে ছিল আলোর বন্যায়। সর্বত্র ছিল মানবতার জয়। বিধর্মীরাও নিশ্চিন্তে ন্যায়বিচার পেত মুসলিম শাসক থেকে।

গুটিকয়েক শকুন এজন্য ইসলামকে ভয় পায়। আমাদের দুর্বলতা এবং মতভিন্নতার সুযোগে তারা শিকড় গেড়েছে এদেশে। ডাল পালা বিস্তৃত করেছে। আমরা যখন টুপি এবং জুব্বা নিয়ে মতভিন্নতায় লিপ্ত, তারা মগজ ধোলাই করেছে তরুণদের। আমরা যখন জোট-বেজোট নিয়ে দলীল এবং ফতোয়া চালাচালিতে ব্যস্ত, ততক্ষণে তারা মাড়িয়ে ফেলেছে বহু পথ। আমরা এখনো জুব্বা এবং পাঞ্জাবী নিয়ে গবেষণা করি! খণ্ড ভারত এবং অখনণ্ড ভারতের পক্ষে যুক্তিতর্ক করি! থানভী, মাদানী নামের আড়ালে তাসাওফের রাজনীতি করি! আমরা যদি এখনো সজাগ না হই, মতভিন্নতার চাদর সরাতে না পারি, তাহলে বাংলাদেশ তুরস্ক হতে খুব বেশি দিন বাকী নেই। তখন আর থাকবেনা কারো সুখের গদি। মুরিদানের বহর।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...