সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ সকাল ৭:০৫
Home / কওমি অঙ্গন / শুভংকরের ফাঁক যেন না থাকে !

শুভংকরের ফাঁক যেন না থাকে !

মুহাম্মাদ মামুনুল হক:

মামুনুল হকআগে একটি গল্প বলি-
এক পাল মেষ থাকে একটি সংরক্ষিত দূর্গে ৷ দূর্গের ফটক বন্ধ ৷ বাইরে থেকে কড়া নাড়ল কেউ ৷ মেষগুলো ভেতর থেকে জানতে চাইল, কে?
জবাব এল, আমি নেকড়ে!
কী চান?
ভেতরে ঢুকব!
নেকড়ে ঢুকবে বলে মেষগুলো আতংকিত হয়ে পড়ল ৷ বাইরে থেকে নেকড়ে তাদেরকে আশ্বস্ত করল, দরজা খোলো ৷ আমি তোমাদের কোনো ক্ষতি করব না ৷ বিশ্বাস না হলে তোমরা শর্ত দাও ৷ মেষগুলো শর্ত দিল- আমাদের উপর হামলা করবেন না ৷ আমাদের স্বাধীনতা হরণ করবেন না ৷
নেকড়ে বলল, সব শর্ত মঞ্জুর!
মেষগুলো দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে গেল ৷ কেউ বলে শর্ত যেহেতু মঞ্জুর হয়েছে তাহলে দরজা খুলতে সমস্যা কোথায় ৷ আরেক দল বলল, নেকড়ে আমাদের জন্য যত কল্যাণ করতে চায় বাইরে থেকে করুক ৷ ভেতরে আসার কী দরকার ৷ দন্দ্ব-বিরোধে জয়ী হল প্রথম পক্ষ ৷ দরজা দিল খুলে ৷
অতপর …………………………

মুহতারাম,
কওমী আমাদের দূর্গ ৷ এই দূর্গের ভেতর আমরা যতই মতপার্থক্য করি আমাদের অস্তিত্ব ধংস হবে না ৷ কিন্তু মাদরাসার ভেতরে যদি সরকারকে ঢুকতে দেয়া হয় তা হবে আত্মঘাতি ৷ আমাদের পক্ষ থেকে অনেক শর্তের কথা বলা হচ্ছে ঠিক ৷ কিন্তু দরজা বন্ধ রাখার শর্ত কই?
সুতরাং স্বীকৃতি হবে ৷ আল্লামা আহমদ শফী বা আল্লামা ফরিদ মসউদ যে কেউ চেযারম্যান/মেম্বার হোন তাতে আপত্তি নেই ৷ কিন্তু কোনো সরকার যেন ঢুকতে না পারে দেড়শ বছরের দূর্ভেদ্য এই দূর্গে সেই দেয়াল আগে দিন ৷ নইলে নির্ঘাত আত্মঘাতি হবে ৷ নেকড়ে যতটা ক্ষতিকর মেষপালের জন্য,আল্লাহর কসম সরকারের হাতে নেতৃত্ব নির্বাচনের ক্ষমতা কওমীর জন্য তার চেয়ে হাজারগুণ ক্ষতিকর !!

দারুল উলুম দেওবন্দের স্বীকৃতি আছে, কিন্তু দেওবন্দের মুহতামিম কে হবে সেটা ঠিক করে মজলিসে শূরা ৷ পাকিস্তান বেফাকের স্বীকৃতি আছে তবে বেফাকের চেয়ারম্যান মহাসচিব ঠিক করে মজলিসে শূরা ৷ আর আমরা হলাম অপদার্থের দল, আমাদের চেয়ারম্যান আল্লামা আহমদ শফী, বলে দিল সরকার ৷ কো-চেয়ার ম্যান, ফরিদ মসউদ সাহেব, বলে দিল সরকার ৷ মহা সচিব, রূহুল আমীন সাহেব, বলে দিল সরকার ৷ আহ্বায়ক কে হবে? বলে দিল সরকার ৷ সদস্য সচিব কে হবে? বলে দিল সরকার ৷ এই দরজা খুলে দিলে হাজার শর্ত দিয়েও অস্তিত্ব রক্ষা হবে না ৷
তাই আসুন, আওয়াজ তুলি লাখো কণ্ঠে “কওমীর চেয়ারম্যান, মহাসচিব, কমিটি নির্বাচনের ক্ষমতা থাকবে কওমীর হাতে -এই শর্ত দিয়ে যে স্বীকৃতি এনে দিবে আমরা কওমী জনতা থাকব তার সাথে ৷ 

“যারা মনে করেন কওমীর নেতৃত্ব নির্বচনের দায়িত্ব কওমীর হাতে না থেকে সরকারের হাতে থাকলে ( উসূলে হাশতেগানার আলোকে) স্বকীয়তা রক্ষা পাবে না তারা আমার সাথে সহমত পোষন করুন ৷ আর যারা মনে করেন সরকারের হাতে থাকলেও স্বকীয়তা রক্ষা পাবে তারা দ্বিমত পোষন করুন ৷”

আরজ গুজার
মুহাম্মাদ মামুনুল হক
জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...