বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ২:৫৪
Home / আকাবির-আসলাফ / শায়েখ আমরা ভাল নেই…

শায়েখ আমরা ভাল নেই…

সৈয়দ আনোয়ার আব্দুল্লাহ:

14141931_1787065901576520_5966099058440651256_nশায়েখ আপনি একদা কওমী সনদের স্বীকৃতির জন্য মুক্তাঙ্গনে অনশন করেছিলেন জীবনের পড়ন্ত বেলায় এসে। রাজপথে রাতদিন বিছানা পেতে ছিলেন স্বীকৃতির দাবী আদায়ের লক্ষ্যে। কিন্তু ওরা কেউ এসে দাঁড়ায়নি তখনো আপনার পাশে। বিরোধীতা করা হয়েছিল সেদিনও আপনার নানান খুড়া যুক্তি দাঁড় করিয়ে। ষড়যন্ত্রের গন্ধ খুঁজতে ব্যস্ত ছিলেন তারা আপনার সাহসী পদক্ষেপের মাঝে। আপনার দাবী টেকাতে সেদিনও কেউ কেউ মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন। সেই কঠিন মুহুর্তে কেবল একজন মানুষ এসে আপনার হাতে হাত ধরে সাহস যুগিয়েছিলেন । একাত্বতা ঘোষনা করেছিলেন “এখনি কওমী স্বীকিতি চাই” বলে, পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন প্রাণপ্রিয় উস্তাদের। তিনি আমিরুল মুজাহিদীন সৈয়দ ফজলুল করিম চরমোনাইর মরহুম পীর সাহেব রহ। তারপর আপনার চাপে পড়ে, স্বীকৃতির নামে বিএনপির প্রহসন ঘোষনার কথা আজো আমরা ভূলিনি। আপনারর নাম যখন শায়খুল হাদীস হিসাবে দক্ষিন পূর্ব এশিয়ায় এক নামে পরিচিত, তখন আমরা দুনিয়াতে আর কোন শায়খুল হাদীসের নাম এমন ভাবে শুনিনি। সেই আপনাকে আমরা কখনো শিয়া বানিয়েছি। নানান ফতোয়া দিয়ে আক্রমণ করেছি। শায়েখ আপনি ক্ষমা করেছেন কি না জানি না।

হাফিজ্জি হুজুর বলতেন, “আজিজুল হক তোমাদের অলংকার। তাকে তোমরা সামনে রাখবে। সে ছাড়া তোমরা চলতে পারবে না।” কিন্তু আজীবন আপনার স্বগোত্রিয়রাই আপনার পথে কাঁটা বিছিয়েছে। কষ্টে জর্জরতি করেছে নানান ভাবে আপনাকে। ভুল বুঝেছে। আপনার চিন্তা চেতনা আর যুগোপযোগী সিদ্বান্তের বিরোধীতা করেছে। সময়ে সময়ে একেক মিথ্যাচারে ভূষিত করেছে। আপনার দলকে ইরানী কাফেলায় ভূষিত করে পথ আগলে দাঁড়িয়েছে। তবুও আপনি তাদের মন্দ বলেন নি কখনো। কেবল বারবার আমাদের জাগিয়েছেন। কষ্টপেয়েও বুকে টেনে নিয়েছেন। ভালবাসার রজনীগন্ধার ঘ্রাণ শুকিয়েছেন। আপনি আজ নেই। হয়তো পরম সূখেই আছেন মাহবুবে হাকীকীর কাছে। কিন্তু আমরা ভাল নেই। ভাল নেই আপনার কওম আর কওমীর সন্তানেরা।আমরা আজও আগের মতোই রয়ে গেছি। এখনো কওমী স্বীকৃতি টেকাতে শক্তির মহড়া দেই। নানান ইস্যু তৈরি করি স্বীকৃতির বিরোধীতায় মাঠে নামি। এসব দেখে নিশ্চয় আপনার আত্মা কষ্ট পায়। ক্ষমা করবেন শায়েখ। আমরা ভালো নেই। আমরা যারা স্বীকৃতির কথা বলি তারা আপনার চেতনায় উজ্জিবিত। আপনার দেখানো পথেই হাটি। আপনার স্বপ্ন ও চেতনাকে বুকে লালন করি পরম যতনে। তারা আপনার রুহানী ফয়েজের প্রত্যাশা রাখে। আর কায়মনোবাক্যে রব্বে করিমের দরবারে দোয়া করি, তিনি যেন আপনার কবরকে নূর দিয়ে ভরে দিন। আমিন।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

জাগতিক ও ইসলামী শিক্ষা

#জাগতিক_ও_ইসলামী_শিক্ষা মানুষের খুদি বা রূহকে উন্নতিসাধনের প্রচেষ্টার নামই হলো শিক্ষা, কথাটি আল্লামা ইকবালের। রবীন্দ্রনাথের মতে, ...