বুধবার, ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ৪:০৫
Home / আমল / যারা আল্লাহর ওপর ভরসা করে তাদের ফজিলত

যারা আল্লাহর ওপর ভরসা করে তাদের ফজিলত

 

takdirعَنِ ابنِ عَبَّاسٍ رَضِيَ الله عَنهُمَا، قَالَ : قَالَ رَسُولُ الله ﷺ: «عُرِضَتْ عَلَيَّ الأُمَمُ، فَرَأيْتُ النَّبيَّ ومَعَهُ الرُّهَيطُ، وَالنَّبِيَّ وَمَعَهُ الرَّجُلُ وَالرَّجُلانِ، وَالنبيَّ لَيْسَ مَعَهُ أَحَدٌ إِذْ رُفِعَ لي سَوَادٌ عَظيمٌ فَظَنَنْتُ أَنَّهُمْ أُمَّتِي فقيلَ لِي : هَذَا مُوسَى وَقَومُهُ، ولكنِ انْظُرْ إِلَى الأُفُقِ، فَنَظَرتُ فَإِذا سَوادٌ عَظِيمٌ، فقيلَ لي : انْظُرْ إِلَى الأفُقِ الآخَرِ، فَإِذَا سَوَادٌ عَظيمٌ، فقيلَ لِي : هذِهِ أُمَّتُكَ وَمَعَهُمْ سَبْعُونَ ألفاً يَدْخُلُونَ الجَنَّةَ بِغَيرِ حِسَابٍ ولا عَذَابٍ»، ثُمَّ نَهَضَ فَدخَلَ مَنْزِلَهُ فَخَاضَ النَّاسُ في أُولئكَ الَّذِينَ يَدْخُلُونَ الجَنَّةَ بِغَيْرِ حِسَابٍ ولا عَذَابٍ، فَقَالَ بَعْضُهُمْ : فَلَعَلَّهُمْ الَّذينَ صَحِبوا رسولَ الله ﷺ، وَقالَ بعْضُهُمْ : فَلَعَلَّهُمْ الَّذِينَ وُلِدُوا في الإِسْلامِ فَلَمْ يُشْرِكُوا بِالله شَيئاً – وذَكَرُوا أشيَاءَ – فَخَرجَ عَلَيْهِمْ رَسُولُ الله ﷺ، فَقَالَ: «مَا الَّذِي تَخُوضُونَ فِيهِ ؟»فَأَخْبَرُوهُ فقالَ: «هُمُ الَّذِينَ لاَ يَرْقُونَ وَلا يَسْتَرقُونَ، وَلا يَتَطَيَّرُونَ؛ وعَلَى رَبِّهِمْ يَتَوكَّلُون»فقامَ عُكَّاشَةُ ابنُ محصنٍ، فَقَالَ : ادْعُ الله أنْ يَجْعَلني مِنْهُمْ، فَقَالَ: «أنْتَ مِنْهُمْ»ثُمَّ قَامَ رَجُلٌ آخَرُ، فَقَالَ : ادْعُ اللهَ أنْ يَجْعَلنِي مِنْهُمْ، فَقَالَ: « سَبَقَكَ بِهَا عُكَّاشَةُ»

অর্থ : ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, আল্লাহর রাসূল স. বলেন— আমার কাছে সকল উম্মত পেশ করা হয়েছে। আমি দেখলাম, কোনো নবীর সাথে কয়েকজনমাত্র (৩ থেকে ৭ জন অনুসারী) লোক রয়েছে। কোনো নবীর সাথে এক অথবা দুইজন লোক রয়েছে। কোনো নবীকে দেখলাম তার সাথে কেউ নেই। ইতোমধ্যে বিরাট একটি জামাত আমার সামনে পেশ করা হলো। আমি মনে করলাম— এটিই আমার উম্মত। কিন্তু আমাকে বলা হলো— এটি হলো মূসা ও তার উম্মতের জামাত। কিন্তু আপনি অন্য দিগন্তে তাকান।

এরপর তাকাতেই আরও একটি বিরাট জামাত দেখতে পেলাম। আমাকে বলা হলো— এটি হলো আপনার উম্মত। আর তাদের সঙ্গে রয়েছে এমন ৭০ হাজার লোক, যারা বিনা হিসাব ও বিনা আজাবে বেহেশতে প্রবেশ করবে।

এ কথা বলে তিনি উঠে নিজ ঘরে প্রবেশ করলেন। এদিকে লোকেরা সেই বেহেশতি লোকদের ব্যাপারে বিভিন্ন আলোচনা শুরু করে দিলো, যারা বিনা হিসাব ও আযাবে বেহেশ্তে প্রবেশ করবে। কেউ কেউ বললো— সম্ভবত সেই লোকেরা হলো তারা, যারা আল্লাহর রাসূল স.-এর সাহাবা।

কিছু লোক বললো— বরং ওরা হলো তারা, যারা ইসলামে জন্মগ্রহণ করেছে এবং আল্লাহর সাথে কাউকে শরিক করে নি। আরো অনেকে অনেক কিছু বললো। কিছুক্ষণ পরে আল্লাহর রাসূল স. তাদের কাছে বের হয়ে এসে বললেন— তোমরা কী ব্যাপারে আলোচনা করছো? তারা ব্যাপার খুলে বললে তিনি বললেন— তারা হলো, যারা কোনো জিনিসকে অশুভ লক্ষণ মনে করে না, বরং তারা কেবল আল্লাহর প্রতি ভরসা রাখে।

এ কথা শুনে উক্কাশাহ ইবনে মিহসান উঠে দাঁড়ালেন এবং বললেন— (হে আল্লাহর রাসূল,) আপনি আমার জন্য দোয়া করুন, যেনো আল্লাহ আমাকে তাদের দলভুক্ত করে দেন।

তিনি বললেন— তুমি তাদের মধ্যে একজন।

এরপর আর এক ব্যক্তি উঠে দাঁড়িয়ে বললো— আপনি আমার জন্যও দোয়া করুন, যেনো আল্লাহ আমাকেও তাদের দলভুক্ত করে দেন।

তিনি বললেন— উক্কাশাহ (এ ব্যাপারে) তোমার অগ্রবর্তী হয়ে গেছে ।

[সহিহ বুখারি, হাদিস ৫৭০৫]

 

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

আধ্যাত্মিকতা

ডক্টর আব্দুস সালাম আজাদী:: আধ্যাত্মিকতা **************** রুহানিয়্যাত বা আধ্যাত্মিকতা ইসলামের এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এর মূল ...