সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ দুপুর ১:১৮
Home / প্রতিদিন / বিশ্বনাথ মাদানিয়া মাদরাসা নিয়ে ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না : অবিলম্বে মাওলানা শিব্বিরকে মুক্তি দিন

বিশ্বনাথ মাদানিয়া মাদরাসা নিয়ে ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না : অবিলম্বে মাওলানা শিব্বিরকে মুক্তি দিন

ইলিয়াস মশহুদ :: জামিয়া মাদানিয়া বিশ্বনাথের ছাত্র সালমান হতাকাণ্ডের প্রকৃত খুনীদের আড়াল করে মাদরাসার প্রিন্সিপাল, শিক্ষক-ছাত্রদের হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। জানাগেছে, গতকাল রোববার বিকেলে জামিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা শিব্বির আহমদসহ তাঁর পরিবারের ৪ জন সদস্য এবং ২ জন শিক্ষককে আটক করে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে ২ জন মহিলাও রয়েছেন। গভীর রাতে মহিলাদের ছেড়ে দিলেও প্রিন্সিপাল মাওলানা শিব্বির আহমদ এবং মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা বশির আহমদ হায়দরপুরীকে থানায় আটক রেখে জোরর্পূবক স্বীকারোক্তি আদায়রে জন্য চেষ্টা চলছে বলে পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে।
এদিকে মাওলানা শিব্বির আহমদ, জামিয়ার নিরিহ ছাত্র-শিক্ষক এবং শায়খ আশরাফ আলী বিশ্বনাথী রাহ.’র বয়োবৃদ্ধা সহধর্মীনী, মেয়েসহ পরিবারের সদস্যদের হয়রানীর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন সিলেটের আলেম ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। মাওলানা শিব্বির আহমদকে আটকের সংবাদে সোমবার সকালে জামিয়া অফিসে উলামায়ে কেরামের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মাদরাসার ছাত্র সালমান হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে বলা হয়, আমরা লক্ষ্য করছি, একটি মহল সালমান হত্যাকাণ্ডকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার ষড়যন্ত্র করছে। এই ষড়যন্ত্র্রের অংশ হিসেবেই জামিয়ার প্রিন্সিপালসহ আল্লামা শায়খ আশরাফ আলী বিশ্বনাথী রাহ.’র পরিবারের সদস্যদের ফাসানোর জন্য অপচেষ্টা করা হচ্ছে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, গলমুকাপন মাদ্রাসার মুহতামিম শায়খুল হাদীস মাওলানা আব্দুশ শহীদ, মাওলানা কাজী আব্দুস সালাম রশিদী, মাওলানা মুশাহিদ দয়ামিরী, মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, প্রিন্সিপ্যাল মাওলানা মাহমুদুল হাসান, মাওলানা ছমির উদ্দীন, মাওলানা আবু বকর সিদ্দিক সরকার, মাওলানা আব্দুস সালাম, মাওলানা আ,হ,ম,ফখর উদ্দীন প্রমুখ।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ

এদিকে জামিয়া মাদানিয়া বিশ্বনাথের প্রতিষ্ঠাতা মুহতামিম, প্রখ্যাত বুযুর্গ আল্লামা শায়খ আশরাফ আলী বিশ্বনাথী রাহ.’র সহধর্মিনীসহ থানা পুলিশ কর্তৃৃক হয়রানীর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জমিয়ত নেতৃবৃন্দ। জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র সভাপতি আল্লামা শায়খ আব্দুল মোমিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা মুহিউদ্দীন খান, মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, সিলেট জেলা সভাপতি মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা জয়নুল আবেদীন, সিলেট মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা মনসুরুল হাসান রায়পুরী, সাধারণ সম্পাদক হাফিজ মাওলানা সৈয়দ শামীম আহমদ, যুব জমিয়তের কেন্দ্রীয় সভাপতি শরফুদ্দীন ইয়াহইয়া, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা গোলাম মওলা, প্রচার সম্পাদক রহুল আমিন নগরী, সিলেট জেলা যুব জমিয়তের প্রচার সম্পাদক মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, সৈয়দপুর আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সৈয়দ রেজওয়ান আহমদ প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, সম্প্রতি মাদরাসার ছাত্র সালমান হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। প্রকৃত খুনীদের আড়াল করতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। মাদরাসা এবং ঐতিহ্যবাহী এই পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে। কোন ষড়যন্ত্রের ফাঁদে পা দিয়ে পুলিশকে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত না নিতে আহবান জানান। অবিলম্বে আটকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান।

নাগরিক অধিকার আন্দোলন
নাগরিক অধিকার আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি খতিব তাজুল ইসলাম ও মহাসচিব বিশিষ্ট সাহিত্যিক  রশিদ জামিল, সহ-সভাপতি মাওলানা সামিউর রাহমান মুসা এক যুক্ত বিবৃতিতে অবিলম্বে জামেয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদানিয়া বিশ্বনাথ মাদ্রাসার প্রিন্সিপ্যাল মাওলানা শিব্বির আহমদ ও তার পরিবারের সদস্যসহ গ্রেপ্তারকৃত সকলকে ২৪ঘণ্টার ভিতর মুক্তি দিতে প্রশাসনের কাছে জোর দাবী পেশ করেছেন।

তারা বলেন, মাদ্রাসার অর্থ আত্মসাৎ করে এবং এই আলামত ও সাক্ষী বিনাশ করতে বিশ্বনাথ সিকিউরিটি গার্ড ও ব্যাংক কর্মকর্তারা যোগসাজোশ করে দারুল উলুমের মিশকাত শরীফের ছাত্রকে তারা গোপনে ডেকে নিয়ে খুন করে তাদের বাসায় ফেলে রেখে প্রকৃত ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। মাদ্রাসার ছাত্র-উস্তাযদের হয়রানী এবং শায়খ বিশ্বনাথীর পরিবারকে ঘৃণ্যভাবে জড়িয়ে থানায় নিয়ে অকথ্য নির্যাতন করে মিথ্যা স্বীকারুক্তির প্রচেষ্টা চালানো বন্ধের আহব্বান জানান।

তারা বলেন, বর্তমান প্রশাসন সীমাহীন দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। প্রতিদিন পুলিশ ও সরকারি লোক কর্তৃক জনগনের উপর বর্বর নির্যাতনের কোন না কোন ঘটনা ফাঁস হচ্ছে। এক দুর্নীতিকে ঢাকতে শত খারাপ কাজে তারা জড়িত হচ্ছে। দেশে আজ আইনের শাসন বলতে কিছু নেই। বৃহত্তর সিলেটের সকল মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকের কাছে আমাদের আকুল আবেদন- অবিলম্বে বিশ্বনাথ মাদ্রাসার পাশে এসে দাঁড়ান। কওমি মদরাসা বিরুধী এই ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করতে সবাই একযুগে আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়ুন।

জমিয়তে উলামা ইউকে
জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাাংলাদেশের সাবেক সভাপতি, বাবায়ে জমিয়ত আল্লামা শায়খ আশরাফ আলী বিশ্বনাথী রাহ. প্রতিষ্ঠিত জামিয়া মাদানিয়া বিশ্বনাথের এক ছাত্রকে কে বা কারা হত্যা করে লাশ ফেলে চলে যায়। সেই হত্যাকাণ্ডের সূত্র বের করার নামে মাদরাসার  প্রতিষ্ঠাতার পুত্র বর্তমান প্রিন্সিপাল মাওলানা শিব্বির আহমদ বিশ্বনাথী, তার বৃদ্ধ মাতা, বোন, মাদ্রাসার মুহাদ্দিস মাওলানা আ.হ.ম ফখরুদ্দীন, প্রিন্সিপালের ভগ্নিপতি মাওলানা বশির আহমদ হায়দরপুরী ও অপর একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের কথা বলে পুলিশ বাসা ও প্রতিষ্ঠান থেকে তুলে নিয়ে যায়। কওমি মাদ্রাসাকে কলঙ্কিত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে, তাই বিশ্বনাথের এই ঘটনাকে পুজি করে একটি চক্র উপজেলার ঐতিহ্যবাহী একটি পরিবার ও মাদরাসা এবং আলেম উলামার ভাবমূর্তিকে খর্ব করার জন্য একটি কু চক্রি মহলের সরাসরি ইন্ধনে যে তা হচ্ছে, সেই আশঙ্কা আজকের গ্রেফতারের ঘটনায় প্রকাশ হয়েছে।

জমিয়তে উলামা ইউকে নেতৃবৃন্দ সর্বস্তরের ইসলামপ্রিয় জনতাকে জামেয়া মাদানিয়ার পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান।
ইউকে জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা শুয়াইব আহমদের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী মাওলানা সৈয়দ তামীম আহমদের পরিচালনায় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্তিত ছিলেন হাফিজ হোসাইন আহমদ বিশ্বনাথী, মাওলানা সৈয়দ নাঈম আহমদ, মাওলানা ফখরুদ্দিন বিশ্বনাথী, মাওলানা খালেদ আহম, ফরীদ আহমদ প্রমুখ।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস  যুক্তরাজ্য

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার সহ-সাধারণ সম্পাদক মুফতী ছালেহ আহমদ আজ এক বিবৃতিতে বলেছেন, অবিলম্বে মাওলানা শিব্বির আহমদসহ তার  পরিবারের সদস্যদের মুক্তি ও জামেয়া মাদানিয়া বিশ্বনাথ নিয়ে সকল প্রকার ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে । মাদ্রাসার ছাত্র হত্যার প্রকৃত অপরাধীদের সনাক্ত করে অবিলম্বে গ্রেফতারের জোর দাবী জানাচ্ছি। আলেম-উলামা ও মাদরাসা নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে দেওয়া হবে না -ইনশাআল্লাহ। প্রয়োজনে  ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে নামতে দেশের  ছাত্র-জনতা প্রস্তুত রয়েছে ।

যুব জমিয়ত বাংলাদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এদিকে সালমান হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আল্লামা আশরাফ আলী বিশ্বনাথী রাহ. এবং তাঁর প্রতিষ্ঠিত জামিয়া মাদানিয়া বিশ্বনাথ, ঐতিহ্যবাহী পরিবার, মাদরাসার প্রিন্সিপ্যাল, ছাত্র-শিক্ষকদেরকে হয়রানী ও গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে যুব জমিয়ত বাংলাদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখা।

বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা স্পষ্ট ভাষায় ঘোষণা করছি, এটা প্রশাসণ কর্তৃক সরকারের আদেশে কওমি মাদরাসার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অপ্রচেষ্টা, মিথ্য হয়রানী ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমরা এর তিব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। বিশ্বনাথীর পরিবার ও মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন প্রকার ষড়যন্ত্র হলে আমরা আবারো রাজপথে নেমে আসতে বাধ্য হব। যার শেষ পরিণাম হবে অনন্ত্য ভয়াবহ। এর দায় গ্রহণ করতে হবে প্রশাসনকে।

বিবৃতি দাতা হলেন, যুব জমিয়ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাওলানা রিজওয়ান বিন ছগীর আহমদ, মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, মাওলানা জাকওয়ান, মাওলানা মাহমুদ, মাওলানা জুনাইদ, হাফেজ ফুজাইল, মাওলানা বশির আহমদ, মাওলানা মাসউদুর রহমান, মাওলানা নিজাম উদ্দিন, মাওলানা শিব্বির আহমদ, জাকির হোসাইন, মাওলানা আব্দুর রহিম প্রমুখ।

সহায়তা : সিলেট রিপোর্ট

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...