সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ ভোর ৫:৫১
Home / প্রবন্ধ-নিবন্ধ / পাঁচকল্লি সমাচার

পাঁচকল্লি সমাচার

মুফতী মুহিউদ্দীন কাসেমী ::

pas kooli tupi১৯৯৮ সন। স্মরণকালের ভয়াবহ স্থায়ী বন্যার বছর। আমি তাইসির [৫ম শ্রেণী] পড়ি।জামিআ আনওয়ারিয়া বরমী, শ্রীপুর, গাজীপুরে। তখন সাদা পাঁচকল্লি টুপি পরতাম। যাতে কোনো কাজ থাকত না।হঠাৎ একদিন একবন্ধু কাজকরা একটি পাঁচকল্লি হাদিয়া দিল; কী যে খুশি হয়েছিলাম বলে বুঝাতে পারব না।
১৯৯৯ সনে ঢাকার বনানীতে অবস্থিত একটি মাদরাসায় মিজান জামাতে দাখেলা নিলাম। ২০০৫ সনে মেশকাতে বেফাক পরীক্ষা দিয়ে দারুল উলুম দেওবন্দে গিয়ে দাওরা ও আদব পড়লাম। ২০০৬-২০০৭ সন। ইফতা পড়তে চেন্নাই এক্সপ্রেসে নয়াদিল্লি থেকে তামিলনাডুর সায়লামে গেলাম। ২০০৮।

মাদরাসা মাজাহিরুল উলুম সায়লামের প্রতিষ্ঠাতা মাও. শফিক খান কাসেমী রহ.। যিনি হযরত শায়খুল হাদিস মাও. যাকারিয়া রহ. এর খলিফা। হযরতের একাধিক পুত্র মুফতি মাহমুদ হাসান গাঙ্গুহি রহ. এর খলিফা। সে মাদরাসায় আকাবিরে উম্মত এবং পীর-মাশায়েখ যাতায়াত করেন। মাও. ইবরাহিম আফ্রিকিও সেখানে যান। সায়লাম শহরটি বেঙ্গালুর ও চেন্নাইয়ের মাঝে অবস্থিত একটি মনোরম শহর।
সেখানের আদব ও ইফতা বিভাগের উস্তাদ মুফতি মাহমুদ হাসান গাঙ্গুহি রহ. এর খলিফা মাও. আবুল কালাম দা.বা. একদিন ক্লাসে বলেন : হযরত থানবী রহ. এর খলিফা গঞ্জেমুরাদাবাদীরহ. দরজির দোকানে জামা সেলাই করতে দেন। দরজি অতিরিক্ত টুকরো কাপড় দিয়ে একটি টুপি সেলাই করে দেয়। ঘটনাচক্রে টুকরো কাপড়ের সংখ্যা ছিল পাঁচটি। তিনি ওই টুপি মাথায় দিয়ে হযরত থানবী রহ. এর মজলিসে যান। তিনি টুপিটি অনেক পছন্দ করেন। মাও. আবুল কালাম দা.বা. বলেন : হযরত থানবী রহ. পাঁচকল্লি টুপি মাথায় দিয়েছেন বলে কোনো প্রমাণ নেই। মাও. আবুল কালাম উপরের ঘটনার সনদ বয়ান করেছিলেন, এখন আমার মনে নেই।
বনানীতে পড়াকালীন পাঁচকল্লি ‘ইউনিরফম’ (?) ছিল। পাঁচকল্লির ফজিলত ও মাহাত্ম্য শুনতে শুনতে এটাকেই সুন্নত মনে করতাম। অন্য টুপি দেখলে মনের মধ্যে খচখচ করত। সমস্যা হলো দেওবন্দে গিয়ে পাঁচকল্লি টুপি আর কিনতে পাওয়া যায় না। দেখলাম, একেকজনে একেক টুপি পরছেন। মনটাই খারাপ হয়ে গেল। এতদিন কী শুনলাম! দেওবন্দেও গায়রে সুন্নতের উপর আমল হয়। এমনকি দেওবন্দে হারদুই হযরত রহ. এর দুজন খলিফার মাথায়ও পাঁচকল্লি-ভিন্নঅন্য টুপি দেখলাম।
দেওবন্দ থেকে গোমরাহ (?) হয়ে দেশে ফিরে কাঙ্ক্ষিত ও লালিত স্বপ্ন তাদরিসে যোগ দিলাম। পাঁচকল্লির পাশাপাশি জালি টুপিও সঙ্গে করে নিয়ে আসলাম। ভুলক্রমে জালি টুপি মাথায় দিয়ে আমার উস্তাদের সামনে গেলে তিনি বললেন, পাঁচকল্লি কই? পাঁচকল্লিকে মনে স্থান দিতে পার নাই? আরও অনেক কিছু। তখন আমার মনে পড়ল, উস্তাদগণ পাঁচকল্লিকে ইউনিফরম
বলতেন মুখে মুখে, আর মনে মনে পাঁচকল্লিকেই সুন্নত মনে করতেন। তা নাহলে আমি তো এখন ওই প্রতিষ্ঠানের ছাত্র না,
আমাকে ইউনিফরম স্মরণ করিয়ে দিচ্ছেন কেন? উপরন্তু ইউনিফরম কেবল মাথায় হয়, জামা ও পায়জামায় হয় না?একজনে সাদা, আরেকজনে কালো, কত যে কালার জামা পরে ছাত্ররা ক্লাস করে। একজনে লুঙ্গি আরেকজনে জুব্বা,আরেকজনে পায়জামা পরে ক্লাস করছে। উস্তাদগণও তাই। ঢাকার একটি মাদরাসার মিটিং হচ্ছে। আমি সেখানের উস্তাদ। ওই মাদরাসার ইউনিফরম (?) হচ্ছে পাঁচকল্লি। দাখেলা ফরমে পাঁচকল্লি বাধ্যতামূলক হওয়ার কথা আছে। ঘটনাচক্রে আমি জালি টুপি পরে বসেছি। আরো দুইজন জালি পরা ছিল। মিটিং শুরুর পরপরই একজন উস্তাদ বলল, উস্তাদরা যদি মাদরাসার কানুননা মানে তাহলে ছাত্রদেরকে কীভাবে শাসন করব? মুহতামিম বললেন, পরিষ্কার করে বলুন। সে বলল, অনেক উস্তাদ পাঁচকল্লি পরে না। ছাত্রদেরকে বললে তারা উত্তর দেয় অমুক উস্তাদ তো পাঁচকল্লি পরে না। অথচ ভরতির ফরমে পাঁচকল্লির কথা আছে।আমি শুধু বলেছিলাম, ভরতির ফরম দিয়ে আমি ভরতি হইনি। সে চিল্লায়ে উঠল, পাঁচকল্লি না পরলে বুযুরগ বুযুরগ লাগে না।সঙ্গে সঙ্গে কড়া প্রতিবাদ করে বলেছিলাম, দেওবন্দের আমার উস্তাদগণ কেউ (অধিকাংশ) পাঁচকল্লি পরে না, তাহলে তারা মুত্তাকি না? বিশ্বের কয়জন আলেম পাঁচকল্লি পরে?এভাবে আমরা পাঁচকল্লিকে সাধারণ জায়েযের স্তর থেকে সুন্নতের স্তরে নিয়ে যাচ্ছি। পাঁচকল্লি পরা সুন্নত না, টুপি পরা সুন্নত।পাঁচকল্লিতে ইসলামের পাঁচকি স্তম্ভ রয়েছে। আমি বলব, আল্লাহ এক, তাঁর কোনো শরিক নেই; তাই এককল্লি টুপি পরা দরকার।কালেমার দুটি অংশ হচ্ছে আল্লাহ ও রাসুল; তাই টুপি হবে দুই কল্লি। ঈমানের মৌলিক শাখা তিনটি, তাওহীদ রিসালাত ও আখিরাত; তাই তিনকল্লি টুপি হওয়া বাঞ্ছনীয়।শরিয়তের দলিল চারটি, কুরআন হাদিস ইজমা ও কিয়াস; তাই টুপি হবে চারকল্লি। ঈমানের সাতাত্তরটির অধিক শাখা রয়েছে; তাই সাতাত্তরকল্লি টুপি চাই। এভাবে আঠার হাজার মাখলুকাতের স্মরণে আঠার হাজারকল্লি টুপির কথা বললেও অযৌক্তিক হবে না। আমি পাঁচকল্লিকে অবজ্ঞা করার উদ্দেশ্যে এসব বলছি না। যারা বাড়াবাড়ি করে তাদের কাজটি যে অযৌক্তিক সেটাই বুঝাতে চাচ্ছি। পাঁচকল্লির প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে, অতিরিক্ত টান নেই। উম্মতের হক্কানী ওলামায়ে কেরাম ও সুলাহায়ে ইজাম যে টুপি পরেন তা-ই সুন্নত হবে।
আবারও বলি, বারবারই বলব, ইউনিফরম কেবল টুপিতেই! এমন ইউনিফরম পৃথিবীর কোথাও নেই।

About Abul Kalam Azad

এটাও পড়তে পারেন

ঐতিহাসিক এই সিদ্ধান্তকে আমরা স্বাগত জানাই

খতিব তাজুল ইসলাম: বিগত আড়াইশত বছর থেকে চলেআাসা ঐতিহাসকি একটি ধারাকে মুল ধারার সাথে যুক্তকরে ...