বুধবার, ২৬শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ দুপুর ১:২২
Home / নারী-পুরুষ / সিলেটের আল হামরা থেকে চার নারী যেভাবে চুরি করে নেয় ১৭ ভরি স্বর্ণ (ভিডিওসহ)

সিলেটের আল হামরা থেকে চার নারী যেভাবে চুরি করে নেয় ১৭ ভরি স্বর্ণ (ভিডিওসহ)

অনলাইন ডেস্ক :: মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) বেলা দেড়টা। নগরীর জিন্দাবাজারস্থ আল হামরা শপিং সিটি। চতুর্থ তলায় গোল্ড গার্ডেন জুয়েলার্সে পৃথকভাবে দুই জন করে চার জন মহিলা ঢুকেন। তন্মধ্যে সালোয়ার-কামিজ পড়া একজন সাড়ে ৬ হাজার টাকায় কানের একজোড়া দোল কিনার চলে দোকানে থাকা ম্যানেজার-কর্মচারীসহ তিনজনের একজনকে ব্যস্ত রাখেন।

বাকিদের মধ্যে দুইজন স্বর্ণ কেনার ভান করে দোকানে থাকা অপর দুই কর্মচারীকে ব্যতিব্যস্ত রাখেন। এরই ফাঁকে শাড়ি পড়া অপর মহিলা দুঃসাহসিকতার সাথে দোকানের স্বর্ণ রাখার সেলফ টপকে ১৭ ভরি স্বর্ণভর্তি একটি বক্স তুলে নিয়ে শাড়ির আচল দিয়ে আড়াল করে ফেলেন।

এরইমধ্যে সময় পেরিয়ে গেছে প্রায় আধা ঘন্টা। বেলা প্রায় ২টার দিকে ওই চার মহিলার দুইজন কোনো স্বর্ণ না কিনেই বেরিয়ে যান। একটুপর ওই চোরচক্রের মূলহোতাসহ অপরজনও হাসিমুখে বেরিয়ে যান। এর কিছুক্ষণ পর ওই স্বর্ণভর্তি বক্সের কথা মনে পড়ে গোল্ড গার্ডেন জুয়েলার্সের ম্যানেজার অশোক কুমার সাহার। কিন্তু যথাস্থানে বক্সটি না দেখে তার মাথায় হাত দেয়া ছাড়া তখন আর কিছুই করার ছিল না।

তবে ওই চোরচক্রকে চিহ্নিত করে ১৭ ভরি স্বর্ণ উদ্ধারের কিঞ্চিত আশা দেখছেন গোল্ড গার্ডেন জুয়েলার্সের স্বত্তাধিকারী হাজী মো. আয়াতুল ইসলাম খান। কেননা তার দোকানে লাগানো সিসি ক্যামেরায় ওই দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনাটি রেকর্ড হয়েছে। সিসিটিভির একটি ফুটেজ সিলেটভিউ২৪ডটকম’র হাতে এসেছে।

ভিডিওতে দেখে যায়, চার জন মহিলার দুইজন বোরকা পরা, একজন শাড়ি এবং অপরজন সালোয়ার-কামিজ পরা রয়েছেন। যিনি স্বর্ণভর্তি বক্সটি তুলে নিয়ে শাড়ির আচলের আড়ালে লুকিয়ে ফেলেন, প্রথমাবস্থায় তিনি বসা ছিলেন। অপর দুই মহিলাকে স্বর্ণের চেইন দেখানোতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন এক কর্মচারী। সালোয়ার-কামিজ পরা মহিলা কানের একজোড়া দোল কিনার মনস্থ করেন। তাকে দোল দেয়ার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন দোকানের অপর দুই কর্মচারী।

ঠিক এই সময়ে চক্রের মূলহোতা উঠে দাঁড়ান। যে সেলফের মধ্যে ১৭ ভরি স্বর্ণভর্তি বক্সটি রাখা ছিল, তিনি ধীরে ধীরে ওই সেলফের সামনে গিয়ে দাঁড়ান। তারপর এদিক-সেদিক চেয়ে দুঃসাহসিকতার সাথে সেলফ্ টপকে ওই বক্স নিজের হাতে তুলে নেন তিনি। তারপর চট করে শাড়ির আচল দিয়ে ঢেকে ফেলেন ওই বক্স। এর কিছুক্ষণ পরই দোকান থেকে বেরিয়ে যান দুই মহিলা। তার কয়েক সেকন্ড পরে অপর দুজনও বেরিয়ে যান।

ভিডিও

About Abul Kalam Azad

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...