বুধবার, ২৬শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ দুপুর ১:৩২
Home / খোলা জানালা / প্রিন্সিপাল হাবীব! আপনি আবারো গর্জে উঠুন (ভিডিওসহ)
প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান

প্রিন্সিপাল হাবীব! আপনি আবারো গর্জে উঠুন (ভিডিওসহ)

প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান
প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান
শাহজালাল ভার্সিটিতে নামকরণ নিয়ে যখন নগ্ন পাঁয়তারা চলছিলো, তখন আপনিই গর্জে উঠেছিলেন! বীরবেশে বলছিলেন, ‘শাহজালালের পূণ্যভূমিতে শাহজালালের নাম থাকবে, আমাদের শরীরে এক বিন্দু রক্ত থাকতে ভার্সিটি থেকে শাহজালালের নাম মূছে দেয়া যাবেনা।’ সেদিন লক্ষজনতা আপনার সাথে ছিলো। নারায়ে তাকবির ধ্বনি নিয়ে আপনার সেই বজ্র হুঙ্কারের প্রতি সমর্থন জানাচ্ছিলেন। ফলে কর্তৃপক্ষ সেই দুঃসাহস আর দেখায়নি।
শাহজালাল ভার্সিটিতে যখন মূর্তি নির্মাণ শুরু করেছিলো, তখন আপনি মাথায় কাফন বেধে মাঠে নামার হুঙ্কার দিয়েছিলেন। প্রথম সতর্কবার্তা হিসেবে আন্দোলন করেছিলেন। হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছিলেন, ‘এই ভার্সিটি শাহজালালের। সুতরাং শাহজালালের মাটিতে কোন মূর্তি নির্মাণ হতে পারে না। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও তা প্রতিহত করে ছাড়বো। ইনশাআল্লাহ…’
হে প্রিন্সিপাল! আপনি সফল। আপনি পরাজয় বরণ করেন নি। শয়তানদের কাছ থেকে বিজয়ের মুকুট ছিনিয়ে এনেছিলেন।
একটু আগে ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজি’র ভিসি কর্তৃক ইসলামিক পোষাকের প্রতি যে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিলো, তা বাস্তবায়নের সেই ভিডিওক্লিপটা দেখলাম। কষ্ট লাগলো। মনের মধ্যে তীর বিদ্ধ হলো। যেন বিষাক্ত সাঁপ আমাকে ছোবল দিয়েছে, সেরকম যন্ত্রণা আমার শরীরে করছে। (দেখুন নিচের লিংকের ভিডিও)
তার কারণ, ভিডিওতে দেখলাম দাড়ি-টুপি, পাঞ্জাবী-পা’জামা পরিহিত এক ব্যক্তি ভার্সিটি’র গেইট দিয়ে ঢুকছে, এমতাবস্থায় কুকুরের বাচ্ছার নির্দেশের গোলাম দাড়োয়ান ঐ হুজুরকে আটকে দিচ্ছে। ভিতরে ঢুকতে দিচ্ছে না। একরকম ধাক্কা দিয়ে বের করে দিচ্ছে!
আহ! কী অমানুষিক ব্যবহার। আল্লাহর নবীর সুন্নাতি পোষাকের প্রতি কী অবজ্ঞা! কী নির্মম ব্যবহার। খোদা তোমার কুদরতি গযব দাও।
হে বাংলার সিংহপুরুষ! আপনি কী ঐ ভিডিও দেখেন নাই? আপনার শরীরের রক্ত কী গরম হয় নাই! আমি জানি! আপনি ঐ ভিডিও দেখলে সহ্য করতে পারবেন না। মাথায় কাফন বেধে মাঠে নেমে যাবেন। ঐ কুলাঙ্গারদের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণা করবেন। আপনি আলেম-ওলামাদের অর্থাৎ আল্লাহর নবীর উত্তরসূরীদের অপমান সইতে পারেন না।
হে মহামান্য নেতা! আপনি আবার ডাক দিন। গর্জে উঠুন। হুঙ্কার দিন। মাথায় কাফন বেধে জ্বালাময়ী হুঙ্কার দিয়ে তসলিমা নাসরিনকে যেভাবে দেশ থেকে বিতাড়িত করেছিলেন, সেভাবেই আলিমুল্লাহ মিয়ান নামক কুলাঙ্গারকে দেশ থেকে বিতাড়িত করুন। লক্ষ-কোটি জনতা আপনার পাশে পাবেন। ইনশাআল্লাহ…..
লেখক : অনলাইন এক্টিভিস্ট

About Abul Kalam Azad

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...