বৃহস্পতিবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ ভোর ৫:৪৮
Home / ইতিহাস ঐতিহ্য / মডারেট ইসলাম বলতে কী বুঝায়…?

মডারেট ইসলাম বলতে কী বুঝায়…?

মাওলানা রাহাত আহমদ চৌধুরী ::

একবিংশ শতাব্দীতে ইসলামের একটি বিকৃত ভার্সন হচ্ছে তথাকথিত ‘মডারেট ইসলাম’। যা আকবরের দ্বীনে এলাহীর চেয়েও ভয়ঙ্কর। কারণ দ্বীনে এলাহীর বিকৃতি সবাই বুঝতে পারলেও মডারেট ইসলামকে সবাই বিকৃত মনেও করে না। বরং মডারেট ইসলামকে সবাই প্রমোট করে এবং নিজেকে মডারেট মুসলিম পরিচয় দিয়ে সাচ্ছন্দবোধ করে।
সম্প্রতি সৌদী যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান একটি কনফারেন্সে সৌদী আরবকে মডারেট ইসলামের দিকে ফিরিয়ে নেওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছেন। আসুন, আমরা জেনে নেই, মূলতঃ মডারেট ইসলাম কী?
আমেরিকার র‍্যান্ড পাবিলিকেশন্স (যাদের নির্দেশনা অনুযায়ী আমেরিকার ফরেইন পলিসি ঠিক হয়) এর বর্ণনা অনুযায়ী, মডারেট ইসলাম হলো, সেই ইসলাম যার মধ্যে চারটি বৈশিষ্ট থাকবে।
(১) যা ডেমোক্রেসি তথা গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতিকে সমর্থন করবে। আর সেই গণতন্ত্র হবে পশ্চিমা সংজ্ঞা অনুযায়ী।
(২) যা নন সেক্টারিয়ান ল’ তথা মানবরচিত আইনকে সমর্থন করবে।
(৩) যা নারীসমাজ ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের (কথিত) অধিকারে বিশ্বাস করবে।
(৪) যা (তাদের সংজ্ঞায়িত) সন্ত্রাস এবং জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করবে।

এই চারটি বৈশিষ্ট্যকে র‍্যান্ড কর্পোরেশনের রিপোর্টে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে।
এই চারটি বৈশিষ্ট যার মধ্যে পাওয়া যাবে তাদের মতে সে হলো ‘মডারেট মুসলিম’। আর যার মধ্যে এই বৈশিষ্টগুলো থাকবে না সে হলো এক্সট্রিম তথা উগ্রপন্থী মুসলিম।

সুতরাং যে গণতন্ত্রে বিশ্বাসী না হয়ে ইসলামী খিলাফাহে বিশ্বাসী হয়, সে উগ্রপন্থী। যে মানবরচিত আইন না মেনে, শরীয়া আইন ফলো করতে চায়, সে উগ্রপন্থী। যে নারীদের হিজাব পরতে বাধ্য করে, সহশিক্ষা ইত্যাদির বিরোধিতা করে, ইসলামী জিযিয়াকে সমর্থন করে, সে উগ্রপন্থী। এবং যে নিজ ভূমিকে রক্ষার জন্য লড়াই করে, মযলুমের জুলুমের বদলা নিতে অস্ত্র হাতে নেয়, সে উগ্রপন্থী।
বলার অপেক্ষা রাখে না, যে, মডারেট ইসলাম একটি চূড়ান্ত বিকৃত ইসলাম। যাকে ‘আমেরিকান ইসলাম’ বা ‘র‍্যান্ড ইসলাম’ নাম দেয়াই বেশী যথাযথ।

কিছুদিন আগে সৌদী আরবে নারীদের গাড়ী ড্রাইভের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এবং সবাইকে অবাক করে নারীদের পুরুষদের সাথে কনসার্টে উপস্থিত হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সুতরাং সৌদী আরব কোন ধরনের মডারেট ইসলামের দিকে যেতে চাচ্ছে, তা আর ব্যাখ্যা করে বলার প্রয়োজন নেই। আমরা শুধু রাসূলের এই ভবিষ্যতবাণীটির কথা মনে রাখতে পারি
عن علي بن أبي طالب رضي الله عنه قال : قال رسول الله صلى الله عليه وسلم :
( يوشك أن يأتي على الناس زمان لا يبقى من الإسلام إلا اسمه ، ولا يبقى من القرآن إلا رسمه ، مساجدهم عامرة وهي خراب من الهدى ، علماؤهم شر مَن تحت أديم السماء ، مِن عندهم تخرج الفتنة وفيهم تعود )
হযরত আলী রা. থেকে বর্ণিত আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, মানুষের ওপর এমন যুগ আসার আশঙ্কা হয় যখন ইসলামের শুধু নাম ছাড়া আর কিছুই থাকবেনা এবং কোরআনের শুধু লিখন ছাড়া আর কিছুই থাকবে না….(বায়হাকী)

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...