শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১০:০৬
Home / প্রতিদিন / নিজের ফাঁসি চাইলেন বদরুল

নিজের ফাঁসি চাইলেন বদরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটে খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি বদরুল আলম বলেছেন, ‘আমার ফাঁসি হোক। খাদিজার জয় হোক।’ আজ রোববার সিলেটের মহানগর মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলার দ্বিতীয় পর্যায়ের সাক্ষ্য গ্রহণের দিন। এ উপলক্ষে বদরুলকে আদালতে উপস্থিতকালে সাংবাদিকদের দেখে তিনি উচ্চ স্বরে এ কথা বলেন।

আজ রোববার বেলা ১১টা থেকে সাক্ষ্য শুরু হয়েছে। মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীসহ ১৪ জনের সাক্ষ্য দেওয়ার কথা রয়েছে।

চলতি মাসের ৫ তারিখ মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে বদরুলকে হাজির করা হয়েছিল। আদালতে নেওয়ার সময় তিনি সাংবাদিক দেখে কথার বলার আকুতি জানিয়েছিলেন। প্রথম দিনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে বদরুলকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের দেখে তিনি বলেছিলেন, ‘মিডিয়ার সঙ্গে আমার কথা আছে। আমাকে বলার সুযোগ দিন।’

আদালত সূত্র জানায়, ৫ ডিসেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের প্রথম দিন ১৭ জন সাক্ষী সাক্ষ্য দেন। তাঁদের মধ্যে এমসি কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ, আহত অবস্থায় খাদিজাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া কলেজশিক্ষার্থী ইমরান কবির ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা রয়েছেন।

আদালতের অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি মাহফুজুর রহমান প্রথম আলোকে জানান, খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলায় মোট সাক্ষী ৩৭ জন। তাঁদের মধ্যে ১৭ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। আজ আদালত সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ করতে পারেন।

গত ৪ অক্টোবর খাদিজা বিএ পরীক্ষা দিয়ে কেন্দ্র থেকে বের হওয়ার সময় এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে বদরুল তাঁকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন। এ ঘটনায় পরদিন হত্যাচেষ্টার অভিযোগে বদরুলকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেন খাদিজার চাচা আবদুল কুদ্দুস। ঘটনার পরপরই বদরুলকে ধরে পুলিশে দেন জনতা। পরে আদালতে হত্যাচেষ্টার দায় স্বীকার করে বদরুল জবানবন্দি দিয়েছেন। ঘটনার ৫৫ দিনের মাথায় পুলিশ বদরুলকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দিলে বিচার-প্রক্রিয়া শুরু হয়।

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...