সোমবার, ২৫শে অক্টোবর, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১২:২৭
Home / প্রতিদিন / জিহাদকে সন্ত্রাসবাদের সাথে তুলনা ইসলামবিরোধী

জিহাদকে সন্ত্রাসবাদের সাথে তুলনা ইসলামবিরোধী

মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম (ফাইল ছবি) কমাশিসা :: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম বলেছেন, ইসলামে চরমপন্থা বা সন্ত্রাসের স্থান নেই। যারা ইসলামকে সন্ত্রাসবাদের সাথে এক করে দেখে তারা ইসলামের পক্ষের শক্তি নয়। ইসলামে জিহাদ আছে কিন্তু সন্ত্রাসবাদ নেই। কাজেই ইসলামের জিহাদকে সন্ত্রাসবাদের সাথে এক করে ফেলা ঠিক হবে না।

মঙ্গলবার লক্ষ্মীপুরে নছীর উদ্দিন আহমদ ভূঁইয়া মিলনায়তনে ওলামা সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ফয়জুল করীম বলেন, বর্তমান সময়ে দেশে দুর্নীতি মহামারী আকার ধারণ করেছে। সরকারের সর্বত্র দুর্নীতিবাজরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। দুর্নীতিবাজদের প্রতিরোধে সরকার ব্যর্থ। দুর্নীতি দমনে ইসলামের বিকল্প নেই।

ইসলামী আন্দোলনের এই নেতা বলেন, দেশের একটি বৃহৎ জনগোষ্ঠী কওমী মাদরাসা পড়ুয়া। কওমী সনদের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি এটা তাদের অধিকার। এটা কারো দয়া বা অনুগ্রহ নয়। সরকারের ন্যূনতম ইসলামের প্রতি দরদ থাকলে কওমীর স্বকীয়তা বজায় রেখেই সনদের স্বীকৃতি দিতে হবে।

তিনি বলেন, ঈমান ও ইসলাম সর্বোপরি জাতি বিধ্বংসী শিক্ষানীতি বাতিল করতেই হবে। সরকার মুখে ইসলামের স্বার্থে কাজ করছে বললেও সিলেবাস সংশোধন না করে মুসলমান সন্তানদের হিন্দুত্ববাদ ও হিন্দুত্ববাদে নিয়ে যাওয়ার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

ফয়জুল করীম বলেন, পৃথিবীর প্রথম মৌলিক মানবাধিকার চুক্তি বলে খ্যাত মদীনা সনদে অমুসলিমদের ধর্ম-দর্শন, সমাজ ও সংস্কৃতিকে পরিপূর্ণভাবে হস্তক্ষেপমুক্ত রাখা হয়েছে। তিনি এই ঔদ্ধত্যপূর্ণ কাজের নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এসব সিন্ডিকেটিভ কর্মকাণ্ডের লক্ষ্য হচ্ছে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামা বাঁধিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করা। বর্তমান পরিবেশকে অস্থিতিশীল করার জন্যই বিশেষ মহল এ অপকর্ম করেছে, যা উদঘাটন করা সরকারের দায়িত্ব।

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...