শুক্রবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১২:১৫
Home / কওমি অঙ্গন / বিপ্লবীদের দিনলিপি

বিপ্লবীদের দিনলিপি

1618613_122781111432688_7536788871473299666_nশাহ  আব্দুস সালাম ছালিক::

সারা জনমের ব্যার্থতা নিয়ে ভাবছি আর কাঁদছি । কবর অতি কাছেই কিন্তু খবর নাই । মন চাইলো ফেবুতে ঢুকে পড়লাম । একটা মিডিয়ার নিউজে চোখ আটকে গেল ।

মিডিয়ার জয়জয়কার । মিডিয়ার কারণেই আজ মুসলিম জাতি পরাজিত । একটা না কয়েকটা শক্তিশালী মিডিয়া দরকার । যোগ্য ব্যাক্তিও আছেন । ধনও আছে । জনও আছে । কিন্তু সাহস নেই । তাই শক্তিশালী কোন মিডিয়া নাই ।

Khatib Tajul Islam খাতিব তাজুল ইসলাম সাহেব একটা মিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা । নাম তার “কমাশিসা” । দেশ বিদেশে আলোচিত । কেউ প্রশংসায় পঞ্চমুখ কেউ নিন্দায় দশমুখ। কারো ভাষ্য হল কওমি মাদরাসা ধ্বংস পরিষদ কারো ভাষ্য হল আসবে সোনালী খেলাফত ।

খতিব তাজুল ইসলামের কথা হল, কে কি বলল, আমার দেখার বিষয় না । আমি আমার কওমি ভাইদের কল্যাণের জন্য এই মিডিয়ার জন্ম দিয়েছি । এ থেকে দুনিয়ার কোন কিছু অর্জন আমার উদ্দেশ্য না । আমার অনেক অর্জন এর পিছনে শেষ করে দিচ্ছি । নিয়তের দিক দিয়েও আমি খুব সতর্ক অবস্থানে আছি । মহৎ উদ্দেশ্যেই আমার পথ চলা । আল্লাহই উত্তম বদলা দাতা । তাই ভাঙ্গা জবানিদের নিয়েই আমার পথ চলা ।

দুনিয়াতে এই পর্যন্ত যত রেভ্যুলেশন ইনকিলাব বিপ্লব সংঘটিত হয়েছে আকছার গুরাবাদের ্দ্বারাই শুরু হয়েছে। কারণ যত খান্দানী রাজনীতিবিদ, গদ্দিনিশীন সভাপতি মহাসচিব নেতা খেতা স্টার মার্কের ঝাঝালো সাহিত্যিক আছেন সকলেই যার তার পজিশন নিয়ে ভিজি। কেউ চানা না বিন্দুমাত্র হরকত তাই হচ্ছেনা বরকত।

ফেবুর এক পোস্টে খুব সুন্দর একটা উপমা যা আপনাদের শেয়ার করছি-

‘রবীন্দ্রনাথ স্কুল পালিয়েছেন। নজরুল তো বেশি পড়তেই পারলোনা। লালন তো বুঝলই না স্কুল কি? আজ মানুষ তাদেরকে নিয়ে গবেষনা করে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করছে। আন্ডি কার্নেগীকে তো ময়লা পোশাকের জন্য পার্কেই ঢুকতে দেয়নি। ৩০ বছর পরে উনি সেই পার্কটি কিনে ফেলেন আর সাইন বোর্ড লাগিয়ে দেন ‘সবার জন্য উন্মুক্ত’।স্টিভ জব শুধু একদিন ভাল খাবারের আশায় ৭ মাইল দূরে পায়ে হেটে গির্জায় যেতেন। ভারতের সংবিধান প্রণেতা বাবা আম্বেদকর নিম্ন বর্ণের হিন্দু ছিলেন বলে স্কুলের বারান্দায় বসে বসে ক্লাস করতেন। কোন গাড়ি তাকে নিতনা। মাইলের পর মাইল হেঁটে পরীক্ষা দিয়েছেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণর আতিয়ার রাহমান বাজার থেকে চাঁদা তুলে পড়া লেখা করেছেন। উনি সবার রিন শোধ করেত পারলেও ওই চাঁদার টাকা শোধ করতে কোনদিন সাহস পাননি।সুন্দর চেহারার কথা  ভাবছেন? শেখ সাদী (র) এর চেহারা যথেষ্ট কাদাকার ছিলো, শাইখুল ইসলাম আল্লামা তকি উসমানির চেহারা দাঁতের গঠন কি খুব সুন্দর? লতা মুংগেস্কারের চেহারা মোটেই সুশ্রী নয়। তৈমুর লং খোঁড়া ছিলেন, নেপোলিয়ান বেটে ছিলেন। শচীন টেন্ডুলকারের উচ্চতা তো জানাই আছে। আব্রাহাম লিন্কনের মুখ ও হাত যথেষ্ট বাড় ছিল। স্মৃতি শক্তির কথা ভাবছেন? আইস্টাইন নিজের বাড়ির ঠিকানা ও ফোন নাম্বার মনে রাখতে পারতেন না।শিক্ষা কোন কিছুই আপনার উন্নতির পিছনে বাঁধা হতে পারে না। যদি কোন কিছু বাঁধা্ হয়ে দাঁড়ায় তবে তা আপনার ভিতরের ভয়। ভয়কে দূরে রেখে জয় করা শিখুন সাফল্য ধরাদিবেই।’

অনেকে হা করে বসে আছেন কমাশিসার সভাপতির পদ অলংকরণ করবেন। তবে আপনার জন্য দুঃসংবাদ যে কমাশিসায় কোন পদ পদবীর সুযোগ নেই।আছে চিন্তার খেলা। চিন্তা ফিকিরের জন্য কি কমিটি সভাপতি সেক্রেটারী লাগে?

তাই খতিব তাজুল ইসলামের বক্তব্য হলো-আমরা মক্কী জিন্দেগী অতিক্রান্ত করছি। কোরেশরা অভিযোগ করতো যে, মুহাম্মাদের সাথীতো দেখি সকল ফকিরের দল? সকল হোমড়া চোমড়া নেতা পাতি নেতারা একথা বলে তারা মুসলমানদের তিরস্কার করতো। তাই বলে কি বিপ্লবের ধারাবাহিকতা থেমে গিয়েছিলো? যে কথায় যে ভাষায় যে ইশারায় থাকে মাজলুমানের কান্না সে ভাষার  আওয়াজ যতই ক্ষীন হউক তা কিন্তু তুষের আগুনের মতো ধীরে ধীরে একদিন লেলিহান শিখার মতো জ্বলে উঠবে সন্দেহ নেই।

আমার আশা থাকবে যোগ্যরা, সাহিত্যিকরা, সম্পদশালীরা এগিয়ে আসবেন আমি তাদের সেবক হয়ে কাজ করবো । আমি এই দিনের অপেক্ষায় বসে আছি । ইনশা আল্লাহ সে দিন বেশি দূরে না । কিন্তু তার আগে অযোগ্যদের নিয়েই আমাকে পথ চলতে হবে । মসজিদে উপস্থিত যারা হয় তাদের নিয়েই নামায পড়তে হয় ।

সেই তাজুল ভাইর মিডিয়ার একটা লেখা গত এক দু দিন হয় পোস্ট হয়েছে । প্রায় ৬ হাজার পাঠক লাইক করেছেন। মাত্র কিছু দিনে কমাশিসা মিডিয়ার এই অবস্থা । পাঁচ দশ বছর পর কী হবে ? এর ৯৫ ভাগ লাইকার আবার সময়ের নেক সন্তান কওমি পড়ুয়া ।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...