সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ দুপুর ১:১৩
Home / এশিয়া / মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খোলা চিঠি…

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খোলা চিঠি…

12804302_461294184081596_1671817053_nবিশেষ প্রতিবেদন :: আপনি এখন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এবং প্রভাবশালী, একক ক্ষমতার অধিকারী এমন এক প্রধানমন্ত্রী, যা কিনা বাংলাদেশের ইতিহাসে বিগত দিনে কেউ গুজরেছে বলে আমাদের জানা নেই!

আপনি বাংলাদেশের স্থপতি বংবন্ধু শেখ মুজিবুর রাহমানের প্রধান কন্যা। আপনি চাইলে যাকে ইচ্ছা তাকে ফাঁসি, যাকে ইচ্ছা তাকে খালাস দিতে পারেন। আপনার ভিশন ২০২১ থেকে এখন একলাফে ২০৪১-এ উঠেগেছে। আল্লাহ ছাড়া কোন শক্তি আপনাকে নড়াতে পারবে বলে বিশ্বাস করিনা। আপনিতো এখন এ জাতির ত্রাতা ও মাতা। মাগো! তাই সবিনয়ে আপনার দরবারে কিছু আরজ করতে চাই!

আপনি যে শক্তির উপর ভর করে ক্ষমতায় আছেন বলে আমাদের সন্দেহ হয় তা যদি সত্য হয়; মাগো! তার আগাম কিছু নমুনা ও আশংকা আপনার কাছে পেশ করতে চাই। আপনি দয়া করে ৪৭ র্ূর্ব ভারত বিভাগের খবর নিন। হায়দ্রাবাদ সিকিম কাশ্মির কিভাবে ভারতের হাতে চলে গিয়েছিলো, তারও একটু খবর নেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

মাগো! দুধের শিশুকে মায়ের কুল থেকে কেড়ে নিয়ে শুঁলিতে গেঁথে যারা উপরে উঠায় কিংবা গর্ভবতী নারীর পেট কেটে বাচ্চা বের করে ফুটবল যারা খেলায়; মা ও মেয়েকে একত্রে পিতা ও স্বামীর সামনে ধর্ষণ করে বুকের গোশত যারা কেটে নিয়ে অট্টহাসিতে ফেটে পড়ে, মাগো যারা ১টা গরুর জবাইর অপরাধে ডজনের উপর মুসলমানকে খুন করে, যারা গুজরাট, মিরাট, শ্যমলীতে জীবিত মুসলমানদের ধরে ধরে এনে জলন্ত অগ্নীকুণ্ডে নিক্ষেপ করে আনন্দ নৃত্যে মেতে উঠে- মাগো! গুরজাটের দাঙ্গার জন্য ট্রেনে আগুন ধরিয়ে হিন্দু পুরোহিতদের প্রথমে পুড়িয়ে ছিলো তারাই, যারা মুসলমানদের খুন করেছে যা কোর্টে প্রমাণিত। যারা মুসলমান নারীর লাশ কবর থেকে উঠিয়ে ধর্ষণ করে, যারা বলে ভারত থেকে সর্বশেষ মুসলমানের নাম না মুছা পর্যন্ত নিস্তার যাবেনা, যারা নিছক অনুমানের উপর ভিত্তি করে রাম জনম ভুমি বলে বাবরি মসজিদ ধ্বংস করলো, যারা বোরকা পরে মন্দিরে গরুর গোশত গোপনে রেখে গিয়ে মুসলমানদের উপর বদনাম ছাড়িয়ে গণহত্যা শুরু করে, যারা সামান্য অজুহাতে মুসলমানদের উপর অত্যাচার চালায়, যারা তাদের নিম্নবর্ণের হিন্দুদের মতো মুসলমানদের তুচ্ছ জ্ঞান করে, যারা জাত-পাত ও শ্রেণীপ্রথায় নিজেরা হানাহানি করে মরছে, যারা বিশ্বের মাঝে সেরা গরুর গোশত রপ্তানীতে তারাই মুসলমানদের গরু জবাইর কারণে হত্যা করে, যারা মানুষ হয়ে গরুকে খোদা ভাবে, যারা পুরুষের লিংগকে প্রকাশ্যে পুঁজা করে শিবলিংগের নামে; যারা মাটির তৈরী নারীর নগ্ন দেহের যৌন সুঁড়সুঁড়ি মার্কা চিত্রকে ধর্ম বলে যৌনতাকে পুঁজা করে! ….তাদেরই কবলে কিনা আজ বাংলাদেশ চলে যাচ্ছে!

আপনার বাবা যাদেরকে হাতগুটিয়ে দেশ থেকে বের করে দিলেন, তাদেরকে আবার ডেকে এনে আপনি কোন সর্বনাশ করতে যাচ্ছেন মাগো? আপনিতো সেই মুজিবের কন্যা, যিনি বাংলাদেশকে একটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ জাতি হিসেবে বিশ্বের দরবারে পরিচয় করিয়ে দেন। আপনিতো সেই মুজিব তনয়া, যিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশন কায়েম করেছিলেন। যিনি দিয়েছিলেন বিশ্ব ইজতেমার জন্য ঢাকার তুরাগের জায়গা। তিনিতো একজন পাক্কা মুসলমান ছিলেন। আর সৌভাগ্যের কথা- আমরা শোনেছি প্রতিদিন কুরআন তিলাওয়াত করেই আপনার সকাল শুরু হয়। আপনি মাথায় পট্টি হাতে তসবিহ নিয়ে হজ্জ-উমরাহ সম্পাদন করেন।

মাগো! আপনিতো দেখি সবসময় মাথায় কাপড় দিয়ে রাখেন। একজন সম্ভ্রান্ত মুসলিম নারী হিসেবেই আমরা আপনাকে দেখি। তাহলে কেন আমরা আপনার সময়ে বাংলাদেশ থেকে ইসলাম ও মুসলমানদের নাম নিশানা মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র শোনবো? মাগো! আপনার অগোচরে কি হচ্ছে এসব? সংবিধান থেকে আল্লাহর উপর আস্থা ও বিশ্বাস তুলে দেয়া হলো। এখন নাকি রাষ্ট্রধর্ম ইসলামও থাকবেনা?

মাগো! দোয়েল, কাঠাল, শাপলা, কবি আর জাতির পিতার চেয়েও কি রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম খুবই জঘণ্য?

মাগো! আপনার কি জানা আছে বৃটেনসহ পুরো ইউরোপ রাষ্ট্রীয়ভাবে খৃস্টান দেশ- একমাত্র ফ্রান্স ছাড়া। তারা কি তাদের গণতন্ত্র হারিয়ে ফেলেছে? মানবাধিকার ধ্বংস হয়ে গেছে? অন্যান্য ধর্মের কোন খর্ব হয়েছে?

মাগো! আপনার পাশের দেশে আপনি দেখন না ওরা গরুকে কোথায় নিয়ে গেছে? তারা তাদের ধর্মকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় রেখেছে! আর আপনি কিনা লজ্জা পাচ্ছেন ইসলাম নামক শব্দটি বাংলাদেশের সংবিধানে থাকায়!

মাগো! গুটিকতেক লোকের কথায় কিংবা ক্ষমতায় টিকে থাকার গ্যারান্টি হিসেবে যদি এদেশের জাতীয় আদর্শ, জাতীয় সংস্কৃতিকে জলাঞ্জলি দেন, তাহলে তা ইতিহাসের সবচেয়ে বড় ভুল হবে। যে ভুলের সংশোধনী হাজার বছরেও ফিরানো যাবেনা।

মাগো! তুমি একবার চোখ তুলে তাকাও! দেখো তোমার দেশের কোটি কোটি নাগরিক আজ তাদের ন্যায্য অধিকার পাবার আশায় রাস্তায় রাস্তায় মিছিল করছে। মাথায় কাপন বেঁধেছে! তোমার বিরুদ্ধে নয় কিংবা তোমাকে ক্ষমতা থেকে নামানোর জন্য নয়। তারা তাদের ধর্মের নিরাপত্তা চায়। আমি হলফ করে বলতে পারি, বাংলাদেশের হিন্দুরা যে রাজার হালতে আছে ভারতের মুসলমানরা তার সিকিভাগও সুবিধা পায়না। আপনি দয়া করে এই নাজুক বিষয়ে হাত দিবনে না। যারা আওয়ামীলীগ করে, যুবলীগ করে, ছাত্রলীগ করে, তারাও তো মুসলমান। তাই এই দাবী শুধু আমাদের নয়, গোটা জাতির। আমাদের দেশের মান সম্মানকে ধুলায় মিশিয়ে দিবেন না প্লীজ। দয়া করে একটি ইশারায় আপীল বিভাগ থেকে মামলাটি খারিজ করে দিন। আপনার সাহসিকতার প্রশংসা করি আর বলি- দেশের স্বাধীনতার চেতনার সাথে মুসলমানদের ধর্মীয় চেতনার মুল্যায়ন করুন। আপনি সুস্থ থাকুন বহাল তবীয়তে থাকুন। বাংলাদেশ দীর্ঘজীবি হোক।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...