সোমবার, ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ৪:৫১
Home / প্রতিদিন / প্রতিষ্ঠান পরিচালনার রূপরেখা (০১)

প্রতিষ্ঠান পরিচালনার রূপরেখা (০১)

Komashisha3জুলফিকার মাহমুদী ::

আপনার প্রতিষ্ঠানটি যদি ইবতেদায়ী (প্রাইমারী) লেবেলের হয়, প্রথমেই আপনি একজন অভিজ্ঞতাসম্পন্ন পরিচালক ঠিক করুন৷ পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত হলে পরিচালকসহ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সাত জন শিক্ষক নিয়োগ দিন৷ একজন সহিহ লাহজার ক্বারী, যিনি ছাত্রদের নিয়ে নিয়মিত মশক্ব করতে পারেন৷ ক্বিরাতে সময় ব্যয় করতে পারেন৷ কোন প্রকার অবহেলা না করেন এবং ঐ ক্বারী সাহেবকে যথাযথত মূল্যায়ন যেন করা হয় এবং ক্বিরাত ও মাসাঈলের ঘন্টাটি দিনের শুরুতে হলে ভাল হয়৷

আমাদের অনেক কওমি প্রতিষ্ঠানে এবিষয়ে দুর্বলতা দেখা যায়, যেটি মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়৷ ক্বিরাতের পর ৩০ মিনিট PT (শরীরচর্চা) করানো উচিত৷ বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক নিয়োগ করতে পারলে খুব ভাল৷ একজন বাংলা সাহিত্যে, একজন ইংরেজী সাহিত্যে ইত্যাদি প্রতিটি বিষয়েরই আলাদা আলাদা শিক্ষক নিয়োগ দেয়া চাই। নিয়মিত লেখার গুরুত্বদিন৷ প্রতিদিন কিছু সময় লেখার জন্য নির্ধারন করতে লেখা চর্চা করা দরকার। আমাদের অনেক ছাত্র পড়ায় ভাল কিন্তু লেখালেখিতে একেবারেই দুর্বল৷ তাই হাতের লেখা সুন্দর করার জন্য দক্ষ প্রশিক্ষক নিয়োগ দেয়া যেতে পারে৷ আলাদা একজন হিসাবরক্ষক অবশ্যই নিয়োগ দিবেন৷ আমাদের অনেক প্রতিষ্ঠানে হিসাবরক্ষক স্বয়ং মুহতামিম সাহেব! মুহতামিম সাহেবই হিসাবরক্ষক আর হিসাব রক্ষকই মুহতামিম৷এই রীতি পরিবর্তন করা জরুরী৷আমানতদার, পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন একজন হিসাবরক্ষক নিয়োগ প্রয়োজন।

প্রতি বছর কি পরিমাণ ছাত্র ভর্তি করবেন আগেই ঠিক করে রাখুন৷ পরিমাণের অধিক ছাত্র ভর্তি বন্ধ করুন৷ যে পরিমাণের মেহনত করা সমম্ভব, সেই পরিমাণের অধিক শিক্ষার্থী ভর্তি করলে ছাত্র-শিক্ষক উভয়ই জুলুমের শিকার হবেন৷ আমাদের অনেক প্রতিষ্ঠানে ছাত্রের গুরুত্বেরচ’ ক্লাসের গুরুত্ব অনেক বেশি৷ মানে ছাত্র দু ’একজন হলেও সমস্যা নেই, তবুও ক্লাসের উন্নতি চাই৷ কারণ,  ক্লাসের উন্নতি হলে চাদাঁর উন্নতিও হয়! অপরদিকে শিক্ষকদের বেতন বাকি থাকা- এটা কওমীয়াতের যেন বৈষশষ্ঠ হয়ে দাড়িয়েছে। শিক্ষকসংখ্যা প্রয়োজনের তুলনায় বেশি। বুঝা ভারী রূপী কম৷ এসবের পরিবর্তে আয়-ব্যায়ের হিসাব কশেও ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা অনুপাতে ক্লাস খুলেন৷ যত্রতত্র ক্লাস খোলা- এই নীতির পরিবর্তন করতে হবে৷ প্রধান পরিচালক, সহকারী পরিচালক ইত্যাকার পুরাতন পদ্ধতি ত্যাগ করুন৷ পাচঁটি ক্লাসের দায়িত্ব পাচঁ জনকে দিন৷ একজনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট পরীক্ষা নিয়ন্ত্রন কমিটি করে সারা বৎসর ঐ তিনজনকে দ্বায়িত্ব দিন৷ আরো তিন জনকে ভর্তি সংক্রান্ত দ্বায়িত্ব দিন৷ পাঠ্যতালিকা পাঠদানের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণের জন্য শ্রেণিভিত্তিক রিপোর্টিং পদ্ধতি চালু করুন৷ সকল ছাত্রের অভিবাবকের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার জন্য শ্রেণিভিত্তিক শিক্ষককে দ্বায়িত্ব দিয়ে ছাত্রদের মাসিক উপস্থিতি-অনুপস্থিতির রিপোর্ট তৈরী করে অভিবাবক সচেতনতা রক্ষা করুন৷ ছাত্রদের রিপোর্ট ভাল হলে অভিন্দনপত্র পাঠান ৷ রিপোর্ট খারাপ হলে অভিবাবক সমন্নয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করুন৷ প্রতিষ্ঠান কর্তৃক সকল ছাত্রদের ছবি সম্ভলিত পরিচয়পত্র তৈরি করা সময়ের দাবীই নয়; বরং অনেক ক্ষত্রে অতি প্রয়োজনীয়৷ বাংলাদেশের বর্তমান ঋতু অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানের সময়-সূচি পরিবর্তন করা উচিত বলে মনে করি৷ ১০টা থেকে ৪টা; সময়টি আমার কাছে বংলাদেশের বর্তমান ঋৃতু অনুযায়ী পরিবর্তনযোগ্য ৷ প্রথম শ্রেণি থেকে ৩য় শ্রণি পর্যন্ত সকাল আটটা থেকে ১১টা, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির জন্য দুপুর একটা পর্যন্ত মুনাসিব৷ যুহরের নামাযের পর ছুটি৷ আবাসিক হলে নামাযের পর দুপুরের খাবার, অত:পর কাইলুলাহ (ঘুম )

চলবে…

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...