বুধবার, ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ৪:০১
Home / খোলা জানালা / তাসমীমা মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে, বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে : মাদানী কাফেলা

তাসমীমা মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে, বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে : মাদানী কাফেলা

tasmimalogo1কমাশিসা ডেস্ক :: আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর স্ত্রী এবং দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসমীমা হোসেনের আজান, তাবলীগ ও ধর্মীয় মাহফিল বন্ধ সংক্রান্ত মন্তব্যে জনমনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিযেছে। মাদানী কাফেলা বাংলাদেশের উপদেষ্টা, শাহজালাল ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের সেক্রেটারী বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ অধ্যক্ষ হাফিজ আব্দুর রহমান সিদ্দিকী, মাদানী কাফেলা বাংলাদেশের সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন নগরী, সহসভাপতি হাফিজ শিব্বির আহমদ রাজি, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজ শাহিদ হাতিমী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মাওলানা ইলিয়াস মশহুদ এক বিবৃতিতে গত শনিবার ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসমীমা হোসেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়রের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় আজান, তাবলীগ, ওয়াজ মাহফিল নিযে আপত্তিকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।
বিবৃতিতে তারা বলেন, সাবেক মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর স্ত্রী এবং দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসমীমা হোসেন যে মন্তব্য করেছেন তা ইসলাম বিরুধী। তার এই মন্তব্যে ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হেনেছে। মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকীর কণ্ঠের সাথে কণ্ঠ মিলিয়েছেন। তাই অবিলম্ভে এই বক্তব্য প্রত্যাহরের দাবী জানাচ্ছি।

উল্রেখ্য যে, গতকাল শনিবার সংবাদপত্রের সম্পাদকদের সাথে মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক। সেখানে উল্লেখযোগ্য সংবাদপত্রের সম্পাদকরা যোগ দিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন।
সভায় উপস্থিত ছিলেন বর্তমান সরকারের পরিবেশমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর স্ত্রী ও দৈনিক ইত্তেফাকের সম্পাদক তাসমীমা হোসেন।
সেখানে নিজের বক্তব্যের সময় তাসমীমা হোসেন বলেন, “ফার্মগেটে একটি পার্ক দখল করে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। ব্যক্তিগত সম্পদ হিসেবে এটি ব্যবহার করা হচ্ছে। এর সাথে কয়েকজন মন্ত্রীরও সমর্থন রয়েছে। এভাবে শহরের মধ্যে যেকোনো ধর্মীয় অনুষ্ঠান, ওয়াজ মাহফিল, তাবলিগ বন্ধ করা উচিত। মসজিদ থেকে মাইকে উচ্চ শব্দে আজান দিয়ে শব্দ দূষণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, যাদের আজান শোনা দরকার তারা প্রয়োজনে মসজিদের সাথে ইলেট্রনিক মাধ্যমে নিজেদের কানে লাগিয়ে শুনতে পারে।”
আজ রোববারের সব জাতীয় পত্রিকায় তাসমীমার এই ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্য এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে একমাত্র দৈনিক নয়া দিগন্ত তাদের প্রতিবেদনে তাসমীমার এই বক্তব্য উদ্ধৃত করেছে। sr

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...