বৃহস্পতিবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ সকাল ৬:১৯
Home / ইতিহাস ঐতিহ্য / মসজিদের শহর কলকাতা

মসজিদের শহর কলকাতা

tipu sulatan2নবাব সিরাজৌদোল্লা যখন কলকাতা দখল করতে আসেন, টিপু সুলতানের বংশধরদের যখন নির্বাসনে পাঠানো হয় আর সিপাহি বিদ্রোহের পর বাদশা ওয়াজিদ আলি শাহকে যখন বন্দি করে এ শহরে পাঠানো হয় – এই তিন সময়ই মুসলিমদের জন্য প্রয়োজন পড়ে মসজিদের৷

টিপু সুলতানের মসজিদ
টিপু সুলতানের মসজিদ

 

টিপু সুলতানের মসিজদ

কলকাতার ধর্মতলার মোড়ের উত্তর ধার ঘেঁষে এই মসজিদটি পরিচিত মহীশূরের নবাব টিপু সুলতানের মসজিদ নামে, যেটি ১৮৪২ সালে বানিয়েছিলেন টিপুর ছোট ছেলে গোলাম মহম্মদ শাহ৷

দশ মিনার
দশ মিনার

 

 

দশমিনার

ছোট বড় মিলিয়ে দশটি মিনার আছে মসজিদের মূল গম্বুজকে ঘিরে৷ তাদের গায়ে পঙ্খের প্রাচীন কারুকার্য এখনও অটুট৷

 

 

নাখোদা মসজিদ
নাখোদা মসজিদ

নাখোদা মসজিদ

কলকাতার সবথেকে বড় আকারের মসজিদ চিৎপুর রোডের নাখোদা মসজিদ, যা বঢ়ি মসজিদ নামেও পরিচিত৷ ১৯২৬ সালে নির্মাণ শুরু হয়, শেষ হয় ১৯৪২ সালে৷

 

 

বুলন্দ দরোয়াজা
বুলন্দ দরোয়াজা

বুলন্দ দরোয়াজা

নাখোদা মসজিদের মূল প্রবেশপথটি ফতেপুর সিক্রির বিখ্যাত বুলন্দ দরোয়াজার আদলে বানানো, উচ্চতায় চারতলা বাড়ির সমান৷

 

 

 

Adhunik

আধুনিকতার ছোঁয়া

পুরনো মসজিদগুলো ছাড়াও কলকাতা শহরে বেশ কিছু নতুন মসজিদ তৈরি হয়েছে, যেগুলো স্থাপত্যরীতিতে একেবারেই আধুনিক৷

 

 

 

baba celeপ্রথা, ঐতিহ্য

যেমন জুম্মাবারের নমাজ পড়তে আসা৷ ছোট্ট ছেলেরাও সুন্দর পোশাকে সেজেগুজে মসজিদে আসে বাবার সঙ্গে৷

 

 

 

সৌজন্যে : ডিডব্লিউ

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

কওমি মাদরাসা কল্যাণ ট্রাস্ট, বাংলাদেশ

খতিব তাজুল ইসলাম ট্রাস্টের প্রয়োজনীয়তাঃ কওমি অংগন একটি স্বীকৃত ও তৃণমূল প্লাটফর্ম। দেশ ও জাতির ...