বুধবার, ১৬ই জুন, ২০২১ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১১:০৫
Home / নারী-পুরুষ / গর্ভকালীন বুক জ্বালাপোড়া?

গর্ভকালীন বুক জ্বালাপোড়া?

ডা. ফাহমিদা তুলি :

বুক জ্বালা করা এবং খাবার খাওয়ার পর তা উঠে আসছে বলে মনে হওয়া গর্ভকালীন একটি সাধারণ সমস্যা। এ সময় হরমোনের তারতম্যের কারণে বুকে-পেটে জ্বালাযন্ত্রণা, অস্বস্তিকর অনুভূতি, হালকা পেটব্যথা, বমি ভাব কিংবা বমি হতে পারে। এসব সমস্যাকে সাধারণভাবে অ্যাসিডিটি বা গ্যাসের সমস্যা বলে চিহ্নিত করা হয়। হরমোনের তারতম্য ছাড়াও অনিয়মিত খাবার গ্রহণ অর্থাৎ দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকা কিংবা ভাজাপোড়া এবং অধিক তেল-মসলাসমৃদ্ধ খাবার খাওয়া, খাদ্যে ভেজাল বা ক্ষতিকর পদার্থের উপস্থিতি, দুশ্চিন্তা, মানসিক চাপ প্রভৃতি কারণেও এমন সমস্যা হয়ে থাকে। গর্ভের সন্তান বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সামান্য খাবার গ্রহণেও এসব সমস্যা বাড়ার প্রবণতা থাকে।

গর্ভাবস্থায় এসব সমস্যা থেকে বাঁচার উপায়

*   হালকা খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। অতিরিক্ত ঝাল, মসলাদার খাবার, তেলে ভাজা খাবার খাওয়ার অভ্যাস পরিত্যাগ করুন।

*   একেবারে ভরপেট খাওয়া যাবে না। অল্প অল্প করে বারবার খেতে হবে। এ সময় শুধু ঘুমের সময়টা ছাড়া বাকি সময়ে কোনোভাবেই তিন ঘণ্টার বেশি সময় পেট খালি রাখা যাবে না। তাই শুধু তিন বেলায় নিয়মিত খাওয়া নয়, এর মাঝে স্যুপ, তাজা ফলমূল, দুধ, বিস্কুট, মুড়িসহ অন্যান্য পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।

*   বাইরের খোলা, অস্বাস্থ্যকর খাবার এড়িয়ে চলুন। মুখরোচক হলেও এগুলো আপনার ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

*   খাবার খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শোয়া যাবে না।

*   মানসিক চাপ দূরে সরিয়ে রাখুন। অনাগত সন্তানের কথা ভেবে হাসিখুশি থাকুন।

গর্ভকালীন এসব সমস্যা নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। সাধারণত সন্তান জন্মের পর এসব সমস্যা পুরোপুরিভাবে ভালো হয়ে যায়। তবে নিয়মকানুন মেনে চলার পরেও বেশি সমস্যা হলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন। এ সময় নিজে নিজে কোনো ওষুধ সেবন করা ঠিক নয়।

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

প্রশ্নপত্র ফাঁস সমাচার, বেফাক ও হাইয়ার দ্বায়!

খতিব তাজুল ইসলাম: কলামের শুরু এবং শেষ নিয়ে বেশ বিব্রতে আছি। পুরাটাই আগুছালো অবস্থা। স্বকীয়তার ...