সোমবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ১২:৩৮
Home / অনুসন্ধান / হারিয়ে যাওয়া আমাদের আরেকটি ছাতা

হারিয়ে যাওয়া আমাদের আরেকটি ছাতা

ফাহিম বদরুল হাসান ::
সেই ছোট বেলা থেকে দেখে আসছি, মাদরাসার বিভিন্ন সংকটসহ পারিপারিক কিংবা সামাজিক সমস্যায় আব্বা যখন মাদরাসায় নিজ অফিসে কিংকর্তব্যবিমূড়, হাইপ্রেসারে আধশোয়া; ঠিক তখন পাশে বসা রাজগঞ্জি হুজুর দিয়ে যাচ্ছেন পরামর্শ, করে যাচ্ছেন আশান্বিত।

তাঁর অভিভাবকত্বের চাদরে আবরিত ছিল আমদের গোটা পরিবার। তিনি কখনো আমাদের ভাইবোনদেরকে ছায়া দিয়েছেন আব্বার রাগানলের তেজস্বী থেকে। আবার কখনো খোদ আব্বাকেই পানি খাইয়েছেন চিন্তার মরুতে তৃষ্ণার্ত দেখে। কখনো আমাদেরকে লাফ দিতে সাহস যোগাতেন, কখনো আব্বাকে পায়ের তলে সর্পগর্ত বিষয়ে অবগত করতেন। 12961512_1764483760452022_4514588892158078779_n

“রাজগঞ্জি হুজুর”- জাতীয় কিংবা আন্তর্জাতিক কোনো আলেম ছিলেন না ঠিকই, কিন্তু আল্লাহর নৈকট্য পাওয়ার মতো একজন পরোপকারী আলিম ছিলেন।
সিলেটের কানাইঘাট থানার রাজগঞ্জ মাদরাসার কয়েক যুগের শিক্ষক তিনি। অনেকে মিষ্টভাষী, সরল, সৎ, নিষ্ঠাবান, ভাইস প্রিন্সিপাল, নাইবে মুহতামিম ইত্যাদি বিশেষণ/ উপাধি লাগাবে। কিন্তু, আমার কাছে, আমাদের পরিবারের কাছে তিনি ছিলেন অন্যকিছু, অনেক কিছু।

একজন অভিভাবককে সন্তানের শিক্ষক হওয়া অনেক সহজ কিন্তু একজন শিক্ষককে ছাত্রের অভিভাবক হওয়া অনেক মুশকিল। রাজগঞ্জি হুজুর ছিলেন সেই শিক্ষক, যিনি শিক্ষকতার পরিচয় ছাপিয়ে হয়েছিলেন আমাদের অভিভাবক। এই অভিভাবকত্বের বন্ধনেই হয়তো তাঁর শেষ নামাযটা আমার আব্বা পড়িয়েছেন।

নদীতে ডুবে আকস্মিক মৃত্যু! অকল্পনীয় হলেও অবাস্তব নয়।আল্লাহ তাঁকে জান্নাতবাসী করুন। তাঁর পরিবার সহ সকলকে আল্লাহ ধৈর্য্য ধারণের তাওফিক দিন। আমিন।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

পুলিশি নির্যাতনে হত্যার বিচার চাইবেন কার কাছে?

ডক্টর তুহিন মালিক: (১) মাত্র ১০ হাজার টাকার জন্য সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে যুবককে রাতভর নির্যাতন ...