শুক্রবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ বিকাল ৩:৪৬
Home / আকাবির-আসলাফ / মুফতী সাঈদ আহমদ পালনপুরী : যাঁর পদচুম্বনে ধন্য হবে বাংলার জমিন

মুফতী সাঈদ আহমদ পালনপুরী : যাঁর পদচুম্বনে ধন্য হবে বাংলার জমিন

আব্দুল কাদির মাসুম ::

মুফতি সাঈদ আহমদ পালনপুরী দা. বা.। দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসার সদরুল মুদাররিসিন ও শায়খুল হাদিস। যার ছাত্র চারো মাযহাবের মানুষ। মদিনায় চার মাযহাবের ছাত্রদেরকে একসাথে তিনি হাদিসের দরস দিয়েছেন। ‘মুহাক্কিকুল আসর’, ‘মুহাদ্দিসে কবির’, ‘ফকিহুন নফছ’, ‘মুতাকাল্লিমে ইসলাম’, ‘মুফাসসিরে মিল্লাত’সহ আরো কতো লকবে আমরা তাকে স্মরণ করি।
উস্তাদে মুহতারাম মুফতি আবু ইয়াহইয়া জাকারিয়া দা. বা. তাঁর কথা বলতে গিয়ে চিত্রায়ণ করেছেন এভাবে-
‘তিনি হলেন কিতাবের কালো হরফের সাহসি রাখাল, মুহাদ্দিসে কবীর, ফক্বীহুননফস, মুতাকাল্লিমে ইসলাম ইত্যাদি কত বিশেষণের অধিকারী তিনি, কত বৈশিষ্টের সমাগম যে তার মাঝে বিদ্যমান, ক্লান্তিকর কাব্যিকথায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়।’
উম্মতের উলামায়ে কেরামের উপর শাহ ওলিউল্লাহ রহ.’র ঋণ ছিল। শোধ করেছেন তিনি সে ঋণ। অনেক পরিশ্রম করে দীর্ঘ সময় লাগিয়ে লিখলেন ‘হুজ্জাতুল্লাহিল বালিগা’র ভাষ্যগ্রন্থ ‘রহমাতুল্লাহিল ওয়াসিআহ’। বৃহৎ কলেবরবিশিষ্ট পাঁচ ভলিউমে। আগে একসময় হাকিমুল ইসলাম ক্বারী তৈয়্যব রহ, ইমামুততাফসির হযরত আহমদ আলি লাহুরী রহ.’র মত যুগের ইমামতুল্য ব্যক্তিরাও এ কিতাব পড়াতে গিয়ে হিমশিম খেতেন, আর এখন ‘রহমাতুল্লাহ’র বদৌলতে আমাদের মতো মকতবের বাচ্চারাও ‘হুজ্জাতুল্লাহ’ সহজেই বুঝতে পারি।
আমার উস্তাদে মুহতারাম মুফতি সাইফুল ইসলাম দরবস্তী দা. বা. অামাদেরকে দারসে বলেছিলেন-
‘আমরা যখন ২১ হিজরীতে দেওবন্দ দাওরা পড়ি। পালনপুরী হুজুর অসুস্থতার কারণে দরসে আসতে পারেননি। পরিবর্তে ঘন্টায় আসেন হযরত মাওঃ নসির খান রহ.। দরসে নসির সাহেব রহ. পালনপুরী হুজুরের শিফা কামনা করে দুআ করেছিলেন। সারা ক্লাশ কান্নার আওয়াজে গুঞ্জরিত হয়ে ওঠেছিল। দুআর আগে নসির সাহেব রহ. পালনপুরী হুজুর সম্পর্কে বলেছিলেন-
ﻭﮦ ﺗﺮﺟﻤﺎﻥ ﺷﺎﻩ ﻭﻟﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﮨﮯ , ﺍﻭﺭ ﻭﻩ ﺟﺲ ﻓﻦ ﭘﺮ ﻗﻠﻢ ﺭﻛﮭﺘﺎ ﮨﮯ ﺍﺟﺎﻻ ﻛﺮ ﺩﻳﺘﺎ ﮨﮯ
অর্থাৎ-‘পালনপুরী সাহেব শাহ ওলিউল্লাহ রহ.’র ভাষ্যকার। আর তিনি যে শাস্ত্রেই কলম ধরেন একদম পরিস্কার ও সহজ করে তুলেন।’
তিনি লিখেছেন ‘জামে তিরমিযি’র ভাষ্যগ্রন্থ ‘তুহফাতুল আলমাঈ’। পাকিস্তানের এক প্রসিদ্ধ আলেম হযরত পালনপুরীকে চিঠিতে লিখেছিলেন-‘হযরত, আপনার ‘তুহফাতুল আলমাঈ’ এসে তিরমিযির বাকি সব শরাহকে আলমারীতে ঢুকিয়ে দিলো যেন…।’
আমরা যখন তাঁর সুবিশাল তাফসিরগ্রন্থ ‘হেদায়াতুল কুরআন’ পড়ি, তখন মনে হয় তিনি যেন সময়ের শাওকানী। আল্লামা শাওকানী রহ. যেভাবে অতিসংক্ষেপে তাঁর ‘তাফসিরে ফাতহুল কাদির’তে সহজে সাবলিল ভাষায় কুরআনকে বুঝিয়েছেন, পালনপুরী দা. বা.ও তদ্রপ কালামুল্লাহ’র কথাগুলোকে যেন আমাদের মুখে লুকমা বানিয়ে তুলে দিয়েছেন।
এগুলো ছাড়া তাঁর ‘তুহফাতুল কারী শরহে সহিহুল বুখারী’, ‘আলআউনুল কাবির’, ‘ইলমী খুতাবাত’, হাশিয়ায়ে ফাতাওয়ায়ে দারুল উলুম দেওবন্দ’ প্রভৃতি গ্রন্থের আলোচনা বাদই দিলাম…!!
এই মহান মনীষী তাশরিফ আনবেন আগামী ২৭ অক্টোবর শুক্রবার। তাঁর একান্ত ছাত্র মাও. ইয়াহইয়া দা. বা.’র দাওয়াতে। ঢাকা খিলক্ষেতের মাসনা মাদরাসায়।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

ইতিহাসে আল্লামা আহমদ শফী

–ফরহাদ মজহার বাংলাদেশে দ্বীনি ইসলামের দেওবন্দী ধারার বর্ষীয়ান মুরুব্বি আল্লামা শাহ আহমদ শফী ইন্তেকাল করেছেন। ...