সোমবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ ভোর ৫:১৯
Home / দারস / ‘হাদিসে কুদসি’র পরিচয়

‘হাদিসে কুদসি’র পরিচয়

hadithsইসলামি শরিয়তের চার উৎস মূলের অন্যতম হচ্ছে,‘আল হাদিস’। – প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মাদ মোস্তফা (সা.- এর মুখনিঃসৃত নিজস্ব বাণী ও কর্ম এবং রাসূল (সা.)কর্তৃক সাহাবায়ে কেরাম(রা.) গনের বক্তব্য ও কর্মের অনুমোদন। রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর কথা,কাজ ও অনুমোদনের বিপরিত নয়,সাহাবায়ে কেরামের এমন সব কথা,কাজ ও অনুমোদন হাদিসের মধ্যে গণ্য। হাদিসসমূহের মধ্যে এমন কতগুলো হাদিস রয়েছে যেগুলো আল্লাহর নবী (সা.) নিজ জবানে বর্ণনা করলেও তা মহান আল্লাহ তায়ালার নামে বিবৃত হয়েছে। যেমন- ‘আল্লাহ তায়ালা বলেছেন’ কিংবা ‘মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন’ এভাবে নবিজি (সা.) উল্লেখ হয়েছে। হাদিস শাস্ত্র বিশারদ- মুহাদ্দিসদের কাছে এগুলো ‘হাদিসে কুদসি’ নামে পরিচিত।

কুদ্‌স শব্দের অর্থ হচ্ছে- পবিত্র (দোষ-ক্রটি থেকে)। ‘হাদিসে কুদ্‌সি’ নামে নামকরণ করা হয়েছে। রাসূলুল্লাহ (সা.)যখন এ হাদিসগুলো ব্যক্ত করতেন, তখন তা সরাসরি আল্লাহর পক্ষ থেকে বর্ণনা করতেন। যেমন – আল্লাহ তায়ালা বলেছেন বা বলেন, আবার কখনও বা বলতেন, ‘জিবরাঈ’লকে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, কিংবা ‘জিবরাঈ’ল (আ.)আমাকে বলেছেন।মোট কথা যেসব হাদীসের মর্ম রাসূলুল্লাহ (সা. আল্লাহর পক্ষ থেকে ‘ইলহাম’ কিংবা জিবরাঈল (আ.) এর মাধ্যমে জ্ঞাত হয়ে নিজ ভাষায় প্রকাশ করেছেন, তাই ‘হাদীসে কুদ্‌সী’ হিসেবে সুপরিচিত।

প্রাথমিক যুগের মুহাদ্দিসগণের মতে- ‘হাদিসে কুদসি’র সংখ্যা একশ’য়ের কিছু বেশি। কিন্তু পরবর্তী কালের মুহাদ্দিসগণ প্রায় সহস্র হাদিসকে ‘হাদিসে কুদসি’ হিসাবে গণ্য করেছেন।উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ মুহাদ্দিস হযরতুল আ’ল্লামা মুহাম্মদ মাদানী (রহঃ)- এর বিখ্যাত ‘হাদিসে কুদসি ’ সংকলন গ্রন্থ ‘আল ইতফা-ফা-তুস্ সুন্নিয়্যাতু ফিল আহা-দীসিল কুদসিয়্যাহ’ এ বিয়ষক একটি অন্যতম গ্রন্থ।

গ্রন্থনা : মুফতি ইসা রুহুল্লাহ

সৌজন্যে : প্রিয় ইসলাম, প্রিয়.কম

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

তিন শ্রেণির মানুষ জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না

প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, তিন শ্রেণির মানুষের ওপর আল্লাহর জান্নাত হারাম অর্থাৎ এই ...