মঙ্গলবার, ১৮ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ সন্ধ্যা ৭:৪৮
Home / প্রতিদিন / কেমন আছেন শহীদ মুজ্জাম্মিলের মা?

কেমন আছেন শহীদ মুজ্জাম্মিলের মা?

মুফতী রেজাউল কারীম আবরার ::

আমি আমার মায়ের কথা বলি প্রথমে। বাড়ি থেকে যখনই আমি ঢাকার উদ্দেশ্যে বের হই, মা আমার ছোট ব্যাগ হাতে নিয়ে এগিয়ে দিতে আসেন। আমাদের বাড়ির কোণে বয়সের ভারে নুয়ে পড়া একটি আম গাছ রয়েছে। মা সে গাছ পর্যন্ত আসেন। কপালে চুমো খান। “ভালো করে যাইস বাবা। ঠিকমত পড়াশুনা করিস। শরিরের যত্ন নিস” সহ আরো বিভিন্ন কথা বলেন। মোবাইল ঠিক মত নিলাম কি না সেটাও জিজ্ঞাসা করেন। আমি তার দৃষ্টির আড়ালে হারিয়ে যাওয়া পর্যন্ত তিনি অমিনেষ নেত্রে তাকিয়ে থাকেন। অল্প সময়ের মাঝেই গ্রামের আঁকাবাকা পথ আমাকে মায়ের দৃষ্টির আড়ালে নিয়ে যায়। মা নিশ্চিত তখন কয়েকফোঁটা চোখের পানি ফেলে আমার কল্যাণের দোয়া করেন।
পৃথিবীর সকল মা তার সন্তানকে ভালবাসে। সন্তানের হাত-পা না থাকলেও মায়ের আদরের কোনো কমতি নেই। সন্তানদের নিয়ে মায়ের স্বপ্নের শেষ নেই। তার সন্তান আলোকিত মানুষ হবে, তার জানাজার নামাজ পড়াবে ইত্যাদি। সদ্য শাহাদাত বরণকারী আমাদের ভাই মুজ্জাম্মিলকে নিয়েও তার মায়ের স্বপ্ন ছিল। ছেলে দাওরায়ে হাদিস পড়ছে। কিছুদিন পর তার ছেলে মাওলানা হবে। মাথায় পাগড়ি পরে মুচকি হেসে মাকে জড়িয়ে ধরবে। এমন হাজারো রঙিন স্বপ্ন হয়ত পেখম মেলেছিল মুজ্জাম্মিলের মুহতারাম আম্মুর স্বপ্নিল ভূবনে। কিন্তু হঠাৎ একটি ঝড় এসে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে তার সাজানো স্বপ্ন। তাকে বাস্তবতা মানতে হয়েছে যে, তার ছেলেকে মানুষরুপি কিছু হায়েনা পিটিয়ে হত্যা করেছে! আহ! যখন পিটিয়ে পিটিয়ে তার ছেলেকে মাটিতে ফেলে দিয়েছিল, তখন কি ছিল তার কলজেছেঁড়া ধনের আকুতি! পাষণ্ডরা ধারালো রড দিয়ে তার নাড়িছেড়া ধনের চেহারায় আঘাত করেছে। ক্ষতবিক্ষত করেছে! অথচ তিনি কতবার আদর করে সে জায়গায় চুমো খেয়েছেন! আহ! মুজ্জাম্মিলের আম্মু! জানিনা আমার লেখা আপনার কাছে পৌঁছাবে কি না? আপনাকে শান্তনা দেওয়ার মত শব্দ আমার কাছে নেই।
মা, আমাদের মত হাজার সন্তান আপনার মুজ্জাম্মিলের জায়গা পূর্ণ করতে পারবে না। আপনার বুকে হাহাকার বিরাজ করছে। মুজ্জাম্মিলের স্মৃতিগুলো আপনার কলিজাকে বিদির্ণ করছে নীরবে। আপনি হয়ত অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন এইতো আমার মুজ্জাম্মিল ফিরে আসবে! মা! বিশ্বাস করো! আমি একেবারেই মিথ্যা বলছি না! মুজ্জাম্মিল তোমার অপেক্ষা করছে! সে তোমাকে অভ্যর্থনা জানাবে কখন মা? জানেন? রোজ হাশরে। আপনাকে স্বাগতম জানিয়ে সে নিয়ে যাবে বেহেশতে। শহিদের মা হিসাবে আপনার মাথা সেদিন সবার উঁচুতে থাকবে ইনশাআল্লাহ। শুনো মা! তোমার মুজ্জাম্মিল নিজের রক্ত দিয়ে ইসলাম নামক বৃক্ষটিকে সুশোভিত করেছে! মা, তুমি ভালো থাক। ধৈর্য ধরো। আমরা তোমার মুজ্জাম্মিলকে আমৃত্যু স্মরণ রাখবো ইনশাআল্লাহ।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

প্যান্ডেলের বাইরে সাউন্ড ব্যবহার করা নাজায়েয!

মুহিউদ্দীন কাসেমী: কিছুদিন আগে কী এক কাজে যেন ঢাকায় গেলাম। এশার সময় ট্রেনে ফিরলাম। স্টেশনে ...