সোমবার, ২৫শে জুন, ২০১৮ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ রাত ৯:৪১
Home / সংবাদ / নির্বাচনের আগেই ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নির্বাচনের আগেই ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ডিসেম্বরে জাতীয় নির্বাচনের আগেই ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেবে সরকার। ওই নিয়োগের অর্ধেক পাঁচ হাজার চিকিৎসক আগামী তিন মাসের মধ্যে নিয়োগ দেয়া হবে।

আজ রোববার বিএমএ ভবনে বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরাম-বিএইচআরএফ এবং বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন-বিএমএর যৌথ আয়োজনে ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা জানান। হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের সহসভাপতি নুরুল ইসলাম হাসিবের সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য সচিব হাবিবুর রহমান খান, বিএমএ সভাপতি ডা: মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, মহাসচিব এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল, বিএইচআরএফ সভাপতি তৌফিক মারুফ ও সাধারণ সম্পাদক নিখিল মানকিন বক্তব্য রাখেন।

জনবল ঘাটতিকে স্বাস্থ্য খাতের প্রধান সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমরা যদি ১০ হাজার চিকিৎসক পদায়ন করতে পারি তাহলে গ্রামে ডাক্তারের আর অভাব হবে না। বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে এ চিকিৎসকদের নিয়োগ দিয়ে গ্রামাঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোতে তাদের পদায়ন করা হবে। তিনি বলেন, আমাদের সম্পদের সীমাবদ্ধতা রয়েছে। তাই কাজের ক্ষেত্রে অনেক অভিযোগও থাকে। যারা কাজ করে তাদের কিছু ভুল হবেই। তবে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেয়ার সাড়ে চার বছরের সময়কালে কিছু ভুলত্রুটি হলেও বড় কোনো ভুল বা অভিযোগ হয়নি।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে সব শ্রেণির মানুষ সরকারি চিকিৎসাসেবার ওপর নির্ভরশীল। বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যেখানে নামমাত্র মূল্যে চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়। আমদের এ সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে প্রধান সমস্যা লোকবলের ঘাটতি। সরকার শেষ সময়ে এসে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আগামী দুই থেকে তিন মাসের মধ্যে পিএসসির (সরকারি কর্মকমিশন) মাধ্যমে পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হবে। বিষয়টি চূড়ান্ত। পিএসসির চেয়ারম্যানের সাথে কথা হয়েছে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে দুই-তিন মাস সময় লাগবে। যাদের নেয়া হবে তাদের গ্রামে নিয়োগ দেয়া হবে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে চিকিৎসকেরা তাদের পছন্দমতো এলাকায় কাজ করতে পারবেন। এ ছাড়া নির্বাচনী ওয়াদা আছে। তাই আগামী নির্বাচনের আগে আরো পাঁচ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেবো। এ ১০ হাজার চিকিৎসক পদায়ন করতে পারলে গ্রামে-গঞ্জে আর চিকিৎসা ব্যবস্থার সঙ্কট থাকবে না।

গ্রামে এখন নার্সের সঙ্কট নেই উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা ১০ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছি। আগামীতে আরো চার হাজার নার্স নিয়োগ হবে। আশা করছি, গ্রামে আর নার্স সমস্যা থাকবে না। এ ছাড়া আগামীতে ৪০ হাজার তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী নিয়োগ দেবে সরকার। এটিও চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, চিকিৎসাসেবার মানোন্নয়নে কাজ করছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে আধুনিক মানের বার্ন ইউনিট চালু করা হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পাশে ১০০০ বেডের একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল চালু করা হবে। প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালটির কাজ উদ্বোধন করবেন। তিনি বলেন, চাপে পড়ে বিভিন্ন সময় ভুল চিকিৎসা হয়। আর ভুলত্রুটির কারণে চিকিৎসকদের ওপর হামলাও হয়। তাই চিকিৎসকদের সুরক্ষায় নতুন আইন করা হবে।

বেসরকারি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বেশ কিছু বেসরকারি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেয়া হয়েছে। কিন্তু তারা নিয়মনীতি না মেনে কাজ পরিচালনা করছে। আমরা মেডিক্যালগুলোর উদ্যোক্তাদের সতর্ক করেছি। তারা সংশোধন না হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

নতুন ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বিএমএ সভাপতি ডা: মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন বলেন, আমাদের ২০ হাজার চিকিৎসক দরকার। তাদের সবাইকে আমরা একসাথে নিতে পারব না। আমরা ধাপে ধাপে নিচ্ছি। বর্তমানে দেশের ৩১টি সরকারি মেডিক্যাল কলেজে তিন হাজার ৩১৮ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হন। আর ৬৯টি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হন সাড়ে ছয় হাজার জন।

About Islam Tajul

mm

এটাও পড়তে পারেন

সাংবাদিকের হাত কামড়ে দিল আ’লীগ কর্মী!

এম ওমর ফারুক আজাদ: নাজিরহাট পৌরসভা নির্বাচনে কুম্বারপাড়া স্কুল কেন্দ্রে হঠাত উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। আজ ...