মঙ্গলবার, ২রা জুন, ২০২০ ইং
কমাশিসা পরিবারবিজ্ঞাপন কর্নারযোগাযোগ । সময়ঃ সন্ধ্যা ৭:২৪
Home / আন্তর্জাতিক / প্রথমবারের মতো আদালতে ধাক্কা খেল ট্রাম্পের সংশোধিত মুসলিম নিষেধাজ্ঞা
ফাইল ফটো

প্রথমবারের মতো আদালতে ধাক্কা খেল ট্রাম্পের সংশোধিত মুসলিম নিষেধাজ্ঞা

কমাশিসা ডেস্ক : প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের কোনও আদালতে ধাক্কা খেল ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংশোধিত মুসলিম নিষেধাজ্ঞা। গত শুক্রবার উইসকনসিন আদালতে একজন ফেডারেল বিচারকের রায়ে ধাক্কা খায় ট্রাম্প শিবির। ওই রায়ে যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় পাওয়া এক সিরীয় শরণার্থীর স্ত্রী ও সন্তানকে দেশটিতে নিয়ে আসতে কোনও হয়রানি না করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইউএস ডিস্ট্রিক্ট জজ উইলিয়াম কনলে এ মামলায় তাদের কোনও ধরনের বাধা প্রদানের ওপর স্থগিতাদেশ দেন। বিচারক উইলিয়াম কনলের এ রায় সামগ্রিকভাবে ট্রাম্পের সংশোধিত নিষেধাজ্ঞার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। এটা সুনির্দিষ্টভাবে ওই সিরীয় শরণার্থীর মামলার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য হবে। ওই ব্যক্তির স্ত্রী ও সন্তান এখনও যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার আলোপ্পো শহরে বসবাস করছেন। এ রায়ে ট্রাম্পের সংশোধিত মুসলিম নিষেধাজ্ঞার জন্য প্রযোজ্য না হলেও এটাকে ট্রাম্প শিবিরের জন্য একটা ধাক্কা হিসেবে দেখা হচ্ছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, ট্রাম্পের নতুন নিষেধাজ্ঞার একাধিক চ্যালেঞ্জের মধ্যে এ রায়ও যুক্ত হলো। ৬ মার্চ ২০১৭ তারিখে ইস্যু করা ট্রাম্পের ওই নিষেধাজ্ঞা ১৬ মার্চ থেকে কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে, ট্রাম্পের সংশোধিত মুসলিম নিষেধাজ্ঞার প্রতি আইনি চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য। এর আগে হাওয়াই অঙ্গরাজ্য এ নিষেধাজ্ঞাকে আইনি চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিল। এবার হাওয়াইয়ের সঙ্গে যোগ দিয়েছে নিউ ইয়র্ক, ম্যাসাচুসেটস, ওরিগন ও ওয়াশিংটন। উল্লেখ্য, জানুয়ারিতে ট্রাম্প আরোপিত মূল নিষেধাজ্ঞাটি আইনি চ্যালেঞ্জে হেরে যাওয়ার পর সম্প্রতি দ্বিতীয় দফায় নতুন নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। আগের নিষেধাজ্ঞা সংশোধন করে নতুন নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করা হলেও আদতে তা আগের নিষেধাজ্ঞার মতো করেই মুসলিমদেরকে টার্গেট করা হয়েছে। নতুন আদেশটি জারি হওয়ার পরপরই তার বিরুদ্ধে আইনি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয় হাওয়াই অঙ্গরাজ্য। ১৫ মার্চ মামলার শুনানি হওয়ার কথা। আর এর মধ্যেই হাইওয়াইয়ের মতো করেই নতুন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে আরও কয়েকটি অঙ্গরাজ্য। নিউ ইয়র্ক বলছে, নতুন ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাটি মূলত মুসলিম নিষেধাজ্ঞা। ওয়াশিংটন বলছে, এ নিষেধাজ্ঞা অঙ্গরাজ্যটির জন্য ক্ষতিকর। পরে ওরেগন ও ম্যাসাচুসেটসও একই কাতারে যোগ দেয়। ক্ষমতা গ্রহণের পরই ২৭ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে এক নির্বাহী আদেশে সাত মুসলিম-প্রধান দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র সফরে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। পরে সিয়াটলের একজন বিচারক ট্রাম্পের ওই নিষেধাজ্ঞা স্থগিতের আদেশ দেন। ট্রাম্প প্রশাসন ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলেও সান-ফ্রান্সিসকোভিত্তিক তিন বিচারকের প্যানেল তা খারিজ করেন। পরে সাত মুসলিম-প্রধান দেশের নাগরিকদের ওপর স্থগিত হয়ে যাওয়া নিষেধাজ্ঞা সংশোধন করে ডোনাল্ড ট্রাম্প নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। নতুন জারি করা নিষেধাজ্ঞায় আগের তালিকায় থাকা ইরাককে বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে অপর ছয়টি দেশের নাগরিকদের জন্য নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখা হয়েছে। হোয়াইট হাউসে আয়োজিত এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করার কথা ঘোষণা দেওয়া হয়। ট্রাম্পের জারি করা নতুন এ নিষেধাজ্ঞায় বলা হয়েছে, ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া ও ইয়েমেনের যেসব নাগরিকের বৈধ ভিসা নেই তারা আগামী ৯০ দিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। এদিকে জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট যদিও জানিয়েছে, নয়া অ্যাটর্নি নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত পুরনোরাই দায়িত্ব পালন করে যাবেন। যদিও প্রীত ভারভারাকে কেন ইস্তফা দিতে বলা হল, তা নিয়ে টুঁ শব্দটি করেনি হোয়াইট হাউস কিংবা জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট। ২০০৯-এ তাকে নিউ ইয়র্কের সাদার্ন ডিস্ট্রিক্টের অ্যাটর্নি পদে নিযুক্ত করেন বারাক ওবামা। দেশে তো বটেই, আইনজীবী হিসেবে আন্তর্জাতিক মহলেও অতি পরিচিত নাম ভারভারা। ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্ক গোল্ডম্যান স্যাক্সের পরিচালন পর্ষদে থাকাকালীন তথ্য পাচারের অভিযোগে ২০১২-য় ভারতীয় বংশোদ্ভূত রজত গুপ্তকে দোষী সাব্যস্ত করার ক্ষেত্রে তারই হাত ছিল। আন্তর্জাতিক বহু মামলাতেও দেশের হয়ে সওয়াল করেছেন তিনি। আর ঠিক সেই কারণেই গত নভেম্বরে ট্রাম্প টাওয়ারে বৈঠকের পর তাকে স্বপদে থেকে যাওয়ার কথা বলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। নয়া নির্দেশিকার জেরে এবার সরতে হচ্ছে তাকেও। কিন্তু কেন? দ্ব›েদ্বর মধ্যে রয়েছেন ভারভারা। জাস্টিস ডিপার্টমেন্টেরই অন্য একটি সূত্রে যদিও খবর, ট্রাম্প নিজেই ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে ফোন করে ভারভারার ইস্তফাপত্র নিতে বারণ করে দিয়েছেন।
বিবিসি, রয়টার্স ও সিএনএন।

About Abul Kalam Azad

mm

এটাও পড়তে পারেন

শবে বরাত মানে লাইলাতুন নিস্ফি মিন শা‘বান!

শবে বরাত সম্পর্কে কোনো সহিহ হাদিস নেই? Mohiuddin Kashemi সাহেবের ওয়াল থেকে: অজ্ঞ, নির্বোধ কিংবা ...